উভয় দলই ম্যাচটিতে মাঠে নামবে তাদের সর্বশেষ ম্যাচে জয় নিয়ে। টটেনহ্যাম বর্তমানে পর পর চার ম্যাচ ধরে একটি জয়ের ধারা বজায় রেখেছে, এবং ব্রাইটন তাদের সর্বশেষ ম্যাচে আর্সেনালকে হারিয়েছে।

    ব্রাইটনের অবশ্য সতর্ক থাকতে হবে স্পার্সের দুই ফরোয়ার্ড সন হিউং মিন এবং হ্যারি কেইনের হাত থেকে নিজেদের বাঁচাতে হলে, কারণ উভয়েই রয়েছেন বেশ দারুণ ফর্মে। সন সুনাম কুড়াচ্ছেন তার অসাধারণ ফিনিশিং এবং গোলস্কোরিং  নৈপূণ্যের জন্য, যেখানে কেইন প্রশংসা পাচ্ছেন তার অসাধারণ এসিস্টগুলির জন্য।

    সিগালরা এই ম্যাচটিতে অনেক আত্মবিশ্বাস এবং আগ্রহ নিয়েই প্রবেশ করবে, কারণ তাদের মাথায়ও এই ব্যাপারটি থাকবে যে, এই ম্যাচটিতে যদি তারা জয় হাসিল করতে পারে, তাহলে তারা প্রিমিয়ার লীগের ইতিহাসে মাত্র দ্বিতীয় দল হিসেবে একই সিজনে আর্সেনাল ও টটেনহ্যাম অর্থাৎ নর্থ লন্ডনের উভয় দলকে তাদের মাঠে গিয়ে হারানোর কৃতিত্ব অর্জন করতে পারবে।

     

    পড়ুন:  শেফিল্ড ইউনাইটেড বনাম এস্টন ভিলা ম্যাচ রিপোর্ট
    Share.
    Leave A Reply