ম্যানচেস্টার সিটি চাইবে জেতার পথে ফিরে আসতে, যখন তারা আগামী শনিবার সন্ধ্যায় মার্সিসাইডের গুডিসন পার্কে মুখোমুখি হবে রেলিগেশন লড়াইয়ে লিপ্ত থাকা এভারটনের বিপক্ষে, যাদের কোচ বর্তমানে ইংল্যান্ডের কিংবদন্তি ফুটবলার ফ্র‍্যাংক ল্যাম্পার্ড।

গত সপ্তাহে এতিহাদ স্টেডিয়ামে ম্যানচেস্টার সিটির অনেকদিন ব্যাপী চলমান অপরাজিত থাকার দৌড়ের সমাপ্তি ঘটে, যখন টটেনহ্যামের হ্যারি কেইন দুইটি গোল করে রোমাঞ্চকরভাবে সিটিকে ৩-২ গোলের ব্যবধানে পরাজয়ের দিকে ঢলিয়ে দেয়। এই পরাজয়টি ছিল অক্টোবরের পর থেকে প্রিমিয়ার লীগে স্কাই ব্লু’দের প্রথম হার, এবং ডিসেম্বরের পর থেকে সকল প্রতিযোগীতায় তাদের মাত্র দ্বিতীয় পরাজয়।

পেপ গার্দিওলার শিষ্যরা মনেপ্রানে চাইবে শনিবারের ম্যাচটি জিততে এবং পয়েন্ট টেবিলের শীর্ষে তাদের স্থান আরও পাকাপোক্ত করতে। এই ম্যাচে জিতলে সেটি হবে এভারটনের বিপক্ষে তাদের টানা ১০ম জয়। এভারটন, অন্যদিকে, তাদের গত ৫টি ম্যাচের মধ্যে শুধুমাত্র ১টিতেই জয় পেয়েছে, এবং বর্তমানে রেলিগেশন জোন থেকে মাত্র ২ পয়েন্ট উপরে অবস্থান করছে।

নিজেদের মাঠে লিডস ইউনাইটেডের বিপক্ষে ১০টি অন-টার্গেট শটসহ সহজ ৩-০ গোলের জয় ছিনিয়ে আনার পর এভারটন সাউথ্যাম্পটনের মাঠে গিয়ে একটি হতাশাজনক পারফর্ম্যান্স উপহার দেয় তাদের ভক্ত সমর্থকদের। ম্যাচটিতে তারা ২-০ গোলে হেরে যায়, এবং ম্যাচটিতে তারা গোলমুখে একটি শটও করতে অক্ষম হয়।

দ্বিতীয়ার্ধে সাউথ্যাম্পটনের এডাম আর্মস্ট্রং এবং শেইন লং এর করা গোলগুলোর নিচে দাবা পড়ে এভারটন ভোগ করে তাদের এই সিজনের ১৩তম পরাজয়ের স্বাদ, যার ১২টিই এসেছে প্রিমিয়ার লীগে তাদের গত ১৬টি ম্যাচের মধ্যে।

ফ্র‍্যাংক ল্যাম্পার্ড, যিনি ২০১৪ ও ২০১৫ এর মাঝামাঝি ম্যান সিটির হয়ে ৩৮টি ম্যাচ খেলেছিলেন, এভারটন কোচ হসেবে দায়িত্ব নেওয়ার পর থেকেই চাপের মুখে আছেন, এবং একটি মিশ্র প্রতিক্রিয়াময় শুরু হয়েছে তার এই নতুন ক্লাবে। শুরুতেই দু’টি হোম ম্যাচ জিতলেও ঘরের বাইরে দু’টি ম্যাচ খুব বাজে খেলেই হেরেছে তার দল। আবার, এই সপ্তাহে মিডউইক ম্যাচে বার্নলির আকষ্মিক জয়ের কারণে এভারটন এখন রেলিগেশন জোন থেকে মাত্র দুই পয়েন্টের দূরত্বে।

পড়ুন:  এভারটন বনাম ম্যাঞ্চেস্টার সিটি প্রিভিউ

শনিবারে এভারটনের সামনে একটি পাহাড়সম কর্মভার, এমন এক দলের বিরুদ্ধে যাদেরকে তারা প্রিমিয়ার লীগে গত ১৭ বার চেষ্টা করে কেবলমাত্র ১বার হারাতে পেরেছে। তাছাড়া, গত ৮ বারের প্রতিবারেই তারা সিটির বিপক্ষে পরাজয়ের স্বাদ পেয়েছে। শুধুমাত্র পোর্টসমাউথের বিরুদ্ধে (১৩) ১৯৪৮ থেকে ১৯৫৬ সালের মধ্যে এবং ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডের বিরুদ্ধে (৯) ১৯৯৯ থেকে ২০০৪ সালের মধ্যে তাদের এর চেয়ে বড় একটানা হারের রেকর্ড রয়েছে।

প্রেডিকশনঃ এভারটন ০ – ৩ ম্যান সিটি (Predictions: Everton 0-3 Man City)

সাউথ্যাম্পটনের ডিফেন্স ভাঙতেই গত সপ্তাহে অক্ষম হয়েছে এভারটনের অ্যাটাক। তাই শনিবারে ম্যান সিটির অসাধারণ ডিফেন্স ভেদ করতেও তাদের প্রচন্ড বেগ পেতে হবে, যেটি কিনা বর্তমানে লীগের সেরা ডিফেন্স।

যদি টফিস’রা গোল করতে সক্ষম হয়ও, ম্যান সিটিকে অপর প্রান্তে রুখে দেওয়াও তাদের জন্য খুবই বড় একটি চ্যালেঞ্জ হবে। ম্যান সিটি তাদের এই মৌসুমের ২৬টির মধ্যে ১৭টি প্রিমিয়ার লীগ ম্যাচেই ১টির বেশি গোল করার কীর্তি গড়েছে। গুডিসন পার্কে তাই পেপ গার্দিওলার দলের জন্য খুব সহজ ৩টি পয়েন্ট অপেক্ষা করছে বলেই মনে হচ্ছে।

Share.
Leave A Reply