আগামী শনিবার ওয়েস্ট হ্যামের বিপক্ষে তাদের পরবর্তী লীগ ম্যাচে লিভারপুল মুখিয়ে থাকবে ম্যানচেস্টার সিটিকে তাদের প্রিমিয়ার লীগের সিংহাসন থেকে সরিয়ে নিজেরা বসার লড়াইয়ে আরেক ধাপ এগিয়ে যেতে এবং লীগ টেবিলের ১ নম্বর স্থানটি পুনরুদ্ধার করতে।

ইংলিশ প্রিমিয়ার লীগের নিয়মিত ২০২১-২২ সিজনের ২৮তম রাউন্ডে এসে দেখা যাচ্ছে যে, লিভারপুল ম্যানচেস্টার সিটি থেকে ৬ পয়েন্ট পিছিয়ে থেকে ২য় স্থানে বহাল রয়েছে। তবে, অল রেডদের জন্য আশার বাণী এই যে, তাদের হাতে একটি অতিরিক্ত খেলা রয়েছে, অর্থাৎ, তাদের শিরোপা জয়ের আশা এখনো ভালোভাবেই জেগে রয়েছে। সেই লক্ষ্যে এগুতে হলে তাদের প্রায় বাকি সবগুলো ম্যাচই জিততে হবে।

গত কয়েক মাস ধরে লিভারপুলের অসাধারণ ফর্মের পেছনে মূল কারণই হচ্ছে তাদের প্রত্যেকটি খেলোয়াড়ের অদম্য ফর্ম। একজন বা দু’জনের উপর ভরসা নয়, বরং দলগত পারফর্মেন্সের উপর ভর করেই তারা এগিয়ে চলেছে অদম্য গতিতে। তারপরও, দুই একজন খেলোয়াড়কে কিছুটা আলাদা নজরে না দেখলেই নয়, যেমন মিশরীয় মেসি খ্যাত মোহাম্মদ সালাহ্, যিনি কিনা বর্তমানে লীগের শীর্ষ গোল স্কোরার।

গোল স্কোরিং লিস্টে তার পেছনেই রয়েছেন লিভারপুলের আরেক তারকা, ডিয়োগো জতা – যার নামে এখন পর্যন্ত রয়েছে ১২টি প্রিমিয়ার লীগ গোল। আবার, ঠিক তারপরেই সেই লিস্টে রয়েছেন লিভারপুলের আরেক কিংবদন্তি, সাদিও মানে, যার নামে রয়েছে ১১টি গোল।

ওয়েস্ট হ্যামের খেলোয়াড়েরাও যথেষ্ট আত্মবিশ্বাসের সাথেই এই খেলাটিতে অংশ নিবে। বিশেষ করে তাদের সমসাময়িক রেকর্ড (গত ৪ ম্যাচে অপরাজিত) সেদিকেই ইংগিত করে। কিন্তু লিভারপুলকে রুখে দেওয়া বর্তমানে যেকোন দলের জন্যই খুবই দুর্বিসহ ব্যাপার হয়ে দাঁড়িয়েছে। ওয়েস্ট হ্যামের জন্যও সেটি একটি বড় চ্যালেঞ্জ হবে। ওয়েস্ট হ্যাম ভক্তদের জন্য সুসংবাদ হল তারকা খেলোয়াড়, ম্যানুয়েল ল্যানজিনি, এই ম্যাচের মধ্য দিয়েই ইনজুরি থেকে ফিরছেন।

ওয়েস্ট হ্যাম বর্তমানে ২৭ ম্যাচে ৪৩ পয়েন্ট নিয়ে পয়েন্ট তালিকার ৬ষ্ঠ স্থানে অবস্থান করছে। তারা লিভারপুলের বিপক্ষে মাঠে নামার আগে গত ম্যাচে ওলভারহ্যাম্পটন ওয়ান্ডারার্সকে ঘরের মাঠে ১-০ গোলে হারিয়েছে।

পড়ুন:  বোর্নেমাউথ বনাম ম্যান সিটি: নাগরিকদের ত্রুটির জন্য শূন্য জায়গা রয়েছে

ওয়েস্ট হ্যাম কি পারবে লিভারপুলকে চমকে দিতে (আরও একটি বার)? [Can West Ham Surprise Liverpool (Once Again)?]

প্রিমিয়ার লীগের ২০২১-২২ সিজনে লিভারপুলের এখন পর্যন্ত পরাজয়ের সংখ্যা মাত্র ২টি। কিন্তু, এই দুইটি পরাজয়ের মধ্যে একটি এসেছিল সিজনের শুরুর দিকে ঘরের বাইরে এই ওয়েস্ট হ্যামের বিপক্ষেই। খেলাটির স্কোরলাইন ছিল ৩-২ ওয়েস্ট হ্যামের পক্ষে। সেটি ছিল ওয়েস্ট হ্যামের জন্য এই সিজনের অন্যতম সেরা অর্জন। তবে, সেটি এখন অতীত। এবার কি ফলাফল ভিন্ন হতে পারে? অবশ্যই। তবে, খুব সম্ভবত, ওয়েস্ট হ্যাম এবারও লিভারপুলের বিরুদ্ধে তাদের সেই কার্যকর কৌশলটিই কাজে লাগানোর চেষ্টা করবে। তারা লিভারপুলকে অ্যাটাক করতে আমন্ত্রণ জানাবে, এবং নিজেরা প্রতিপক্ষকে কাউন্টার অ্যাটাকের মাধ্যমে ঘায়েল করার চেষ্টা চালাবে। এই কৌশলটি গত কয়েক সপ্তাহ ধরেও বেশ কয়েকবার তাদের পক্ষে কাজ করেছে। উদাহরণস্বরূপ, ঠিক তাদের সর্বশেষ ম্যাচেই ওলভসের বিপক্ষে তারা শুধুমাত্র ৩৯% বল নিয়ন্ত্রণ রাখতে পেরেছিল। তবুও, তারা ম্যাচটিতে জয়ীই হয়েছিল।

প্রেডিকশন (Predictions)

লিভারপুলের মত বিশাল ও কঠিন প্রতিপক্ষকে রুখে দিতে হলে ওয়েস্ট হ্যামকে মাঠে তাদের সেরাটি দিয়েই খেলতে হবে। অল রেডরা বর্তমানে একটি উড়ন্ত তালমিল বজায় রেখে খেলে যাচ্ছে, এবং তাদের আটকে রাখা বেশির ভাগ ডিফেন্সের জন্যই হয়ে উঠছে দূর্বিসহ। এমতাবস্থায়, তারা অবশ্যই চাইবে নিজেদের মাঠে ওয়েস্ট হ্যামের বিরুদ্ধে সবক’টি পয়েন্টই উদ্ধার করতে।

সবশেষ প্রেডিকশনসমূহের ভিত্তিতে লিভারপুলই এই ম্যাচটি জেতার জন্য ফেভারিট।

Share.
Leave A Reply