চেলসি (Chelsea)

    চেলসি ফুটবল ক্লাব এবং তাদের সমর্থকরা নিশ্চয় এখনো সন্দীহান যে তারা কি করে এলান্ড রোডে গত রবিবার লিডস ইউনাইটেডের কাছে নাকানিচুবানি খেয়েছিল।

    নতুন মৌসুমের শুরুটা বেশ ভালো দু’টি ফলাফলের মধ্য দিয়ে করলেও চেলসি’র খেলোয়াড়দের পারফর্মেন্স সেই ম্যাচ দু’টিতে মোটেও আশানুরূপ ছিল না।

    যদিও এবারের গ্রীষ্মকালীন ট্রান্সফার উইন্ডোতে বেশ কিছু খেলোয়াড়দের দলে আনার পেছনে প্রচুর টাকা খরচ করেছে তারা, এবং আরো বেশি খরচ করার সমুহ সম্ভাবনা রয়েছে, তবুও মনে হচ্ছে যে, থমাস টুখেলের জন্য প্রতিনিয়তই নতুন নতুন সব সমস্যার উদয় হয়ে চলেছে।

    লিডস ইউনাইটেডের নিকট তাদের ৩-০ গোলের পরাজয়টি ছিল তাদের জন্য একটি সতর্কতা বাণী, এবং সেটির ফলে তারা আবার বাস্তবে ফিরে আসতে বাধ্য হবে। তার দলে অর্গানাইজেশনের অভাব, আক্রমণে ধারের ঘাটতি, এবং গোলের ক্ষুধার অনুপস্থিতি থমাস টুখেল এখন হারে হারে টের পাচ্ছেন। এই দলটিকে জয়ের ধারায় ফেরাতে হলে তাকে প্রত্যেক খেলোয়াড়ের উপর অনেক সময় ব্যয় করতে হবে, এবং তাদের আত্মবিশ্বাস আবার ফিরিয়ে আনতে হবে।

    তাদের জন্য অবশ্য ব্যাপারটি অপেক্ষাকৃতভাবে সহজই হবে বলে মনে হচ্ছে, কারণ তাদের পরবর্তী প্রতিপক্ষ হল শোচনীয় পরিস্থিতিতে থাকা লেস্টার সিটি। তবে, এই ম্যাচিটিতে তাদের দলে থাকবেন না নতুন সাইনিং কালিদু কুলিবালি, যিনি লিডস ইউনাইটেডের বিপক্ষে একটি লাল কার্ড দেখে মাঠ ছেড়েছিলেন।

     

    লেস্টার সিটি (Leicester City)

    কিং পাওয়ার স্টেডিয়ামে বর্তমানে কি চলছে তা বুঝতে পারাটা খুবই কঠিন হয়ে পড়েছে। ট্রান্সফার উইন্ডোতে তারা পুরোপুরিভাবেই নিশ্চুপ, এবং বিভিন্ন রিপোর্টে জানা গিয়েছে যে, তাদের দলের বড় মাপের কিছু তারকা খেলোয়াড় নাকি ক্লাবটি ছাড়ার জন্য মরিয়া হয়ে উঠেছেন।

    তা যাই হোক, তাদের জন্য মৌসুমের শুরুটা হয়েছে এক প্রকার দুঃস্বপ্নের মতই। যদিও তারা তাদের তারকা স্ট্রাইকার জেমি ভার্ডিকে গত সপ্তাহে একটি নতুন চুক্তিতে আবদ্ধ করেছে, তবুও টিকে থাকতে হলে তাদেরকে আরো কিছু অ্যাটাকিং সাইনিং করাতে হবে, এবং তাদের ছিন্ন বিচ্ছিন্ন ডিফেন্সটিকেও ঢেলে সাজাতে হবে। নিজেদের মাঠে সাউথ্যাম্পটনের নিকট হারার পর তাদের ঐসকল পজিশনের দূর্বলতা আরো বেশি সামনে এসেছে।

    পড়ুন:  ফুলহ্যাম বনাম শেফিল্ড প্রিভিউ

    লেস্টারে জন্ম নেওয়া সাউথ্যাম্পটন স্ট্রাইকার শে এডামস এর করা দুইটি অসাধারণ গোলের উপর ভর করেই সেইন্টস’রা ম্যাচটি থেকে পূর্ণ তিন পয়েন্ট আদায় করে নেয়।

    এরপরের ম্যাচে ফক্সেস’রা স্ট্যাম্ফোর্ড ব্রিজে মুখোমুখি হবে একটি আহত চেলসি দলের, যারা কি না নিজেদের সর্বশেষ ম্যাচে লিডস ইউনাইটেডের নিকট ধরাসয়ী হয়েছে।

     

    প্রেডিকশন (Prediction)

    খুব সম্ভবত, বর্তমানে প্রিমিয়ার লীগের সবচেয়ে বেশি বিপদে থাকা দলটি হল লেস্টার সিটি। সকল ফুটবল বোদ্ধা ও ফুটবল প্রেমীরাই ভয় করছেন যে, হয়তো এই মৌসুমে লেস্টার সিটি’র জন্য রেলিগেশনই অপেক্ষা করছে। যদিও তাদের মূল একাদশ কোনক্রমেই দূর্বল নয়, তবুও তারা দলটিতে ভারসাম্য খুঁজে পেতে হিমসিম খাচ্ছেন। এবং, সেজন্যই আমরা মনে করি যে, নিজেদের মাঠে চেলসি এমন অগোছালো একটি লেস্টার দলকে সহজেই হারিয়ে তিনটি পয়েন্ট অর্জন করে নেওয়ার সামর্থ্য রাখে।

    চেলসি ২ – ০ লেস্টার সিটি

    ১.৫ গোলের উর্ধ্বে

    চেলসি -১.০ (এশিয়ান হ্যান্ডিক্যাপ)

    Share.
    Leave A Reply