ব্রাইটন এন্ড হোভ এলবিয়ন (Brighton & Hove Albion)

এবারের মৌসুমের অন্যতম বড় সারপ্রাইজ প্যাকেজ হচ্ছে গ্রাহাম পটারের ব্রাইটন এন্ড হোভ এলবিয়ন। গত মৌসুমে আমরা কেবলমাত্র গ্রাহাম পটারের অসাধারণ পরিকল্পনার একটি ঝলকই দেখতে পেয়েছিলাম, কিন্তু এবার তার দল সকল প্রত্যাশাকে পেছনে ফেলে একটি অভাবনীয় সূচনা করেছে, যদিও মৌসুমের শুরুতেই তাদের দল থেকে বেশ কিছু বড় মাপের খেলোয়াড় বিদায় নিয়েছেন।

ওল্ড ট্রাফোর্ডে ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডের বিপক্ষে মৌসুমের প্রথম ম্যাচেই একটি দূর্দান্ত জয় ছিনিয়ে আনার পর ব্রাইটন একের পর এক অসাধারণ ও আত্মবিশ্বাসী সব পারফর্মেন্স উপহার দিয়ে সকলের মন কেড়েছে, এবং এবারের মৌসুমে ভালো কিছু অর্জন করার দিকেই এগুচ্ছে।

তাদের মৌসুমের দ্বিতীয় ম্যাচে নিজেদের মাঠ অ্যামেক্স স্টেডিয়ামে নিউক্যাসেল ইউনাইটেডের সাথে ড্র করার পর তারা জানতো যে ওয়েস্ট হ্যাম ইউনাইটেড এর বিরুদ্ধে জয় অর্জন না করতে পারলে তারা তাদের সমর্থকদের প্রত্যাশা পূরণ করতে পারবে না।

ম্যাক আলিস্টার এর নেওয়া একটি অনবদ্য পেনাল্টি কিক এবং লিয়ান্দ্রো তোসার্দ এর করা একটি চমৎকার গোলের উপর ভর করে তারা ওয়েস্ট হ্যামকে ২-০ গোলে হারিয়ে দিতে সক্ষম হয়, এবং সাথে সাথে ডেভিড ময়েসকে বিপদের মুখে ঠেলে দিতে সমর্থ্য হয়।

ওয়েস্ট হ্যাম ইউনাইটেড বেশ ফুরফুরে মেজাজ নিয়েই প্রবেশ করেছিল ম্যাচটিতে, কারণ তার আগে একটি মিডউইক ম্যাচে তারা উয়েফা কনফারেন্স লীগে ড্যানিশ ক্লাব ভাইবর্গকে হারিয়েছিল। তবে, প্রিমিয়ার লীগে ফিরেই তারা ব্রাইটনের বিরুদ্ধে একটি কটিন পরীক্ষার সম্মুখীন হয়, যেখানে তারা একরকম মুখ থুবড়েই পড়ে।

তবে, এরপর ব্রাইটন মুখোমুখি হবে আত্মবিশ্বাসের চূড়ান্ত সীমায় থাকা আরেকটি দল, অর্থাৎ লিডস ইউনাইটেডের, নিজেদের সর্বশেষ খেলায় যারা চেলসিকে ৩-০ গোলে বিধ্বস্ত করেছিল।

 

লিডস ইউনাইটেড (Leeds United)

জেসি মার্শ বর্তমানে ইয়োর্কশায়ারে নিজের জাদু দেখিয়ে বেড়াচ্ছেন, এবং সেই মনমুগ্ধকর জাদু দেখলে আপনিও হতভম্ব হয়ে রইবেন।

পড়ুন:  টটেনহ্যাম বনাম নটিংহাম ফরেস্ট: জয়ের পথে ফিরতে স্পার্স

গত মৌসুমে অল্পের জন্য রেলিগেশন এর ছোবল থেকে বাঁচার পর অনেকেই মনে করেছিলেন যে, এবারের মৌসুমের শেষে লিডস ইউনাইটেড চ্যাম্পিয়নশিপে ফিরে যাবে। যদিও কেবলমাত্র মৌসুমের সূচনা হয়েছে, তবুও মনে হচ্ছে সেসকল ভবিষ্যদ্বাণীকে তারা ভুলই প্রমাণ করতে চলেছে, কারণ মৌসুমের প্রথম তিনটি ম্যাচ থেকে তারা সর্বমোট ৭টি পয়েন্ট ইতিমধ্যে অর্জন করে নিয়েছে।

তাদের সর্বশেষ ম্যাচে তারা চেলসিকে যেভাবে বিধ্বস্ত করেছে, তাতে তাদেরকে কোনভাবেই ছোট করে দেখা যাবে না। ম্যাচটিতে লিলি হোয়াইটরাই অধিকতর প্রভাব বিস্তার করতে সক্ষম হয়েছিল, এবং স্কোরশিটটিতে তারই প্রতিফলন দেখতে পাওয়া গিয়েছে (লিডস ৩ – ০ চেলসি)।

তাদের পরবর্তী পরীক্ষাটি অনুষ্ঠিত হবে সাউথ কোস্টের অ্যামেক্স স্টেডিয়ামে, যেখানে তারা মুখোমুখি হবে এমন একটি ব্রাইটন দলের, যারা কি না নিজেরাও আত্মবিশ্বাসের চরম সীমায় অবস্থান করছে, এবং বর্তমানে প্রিমিয়ার লীগ টেবিলের ৫ম স্থানেও অবস্থান করছে (৪র্থ স্থানে থাকা লিডস এর চেয়ে এক স্থান পেছনে)। ফলে, এই ম্যাচটি হতে চলেছে নিরপেক্ষ দর্শকদের জন্য খুবই উত্তেজনাকর একটি ম্যাচ, যার ফলাফল নির্ভর করবে কোন দল তাদের সুযোগগুলির অধিকতর সদ্ব্যবহার করতে পারে সেটির উপর।

 

প্রেডিকশন (Prediction)

দুইটি যুবা, গতিশীল ও মনমুগ্ধকর দলের মধ্যকার লড়াইয়ে যেকোন একটি দলকে বেছে নেওয়া খুবই কষ্টসাধ্য একটি ব্যাপার। তবে, মিডফিল্ড এবং আক্রমণভাগে অধিকতর শক্তিমত্তার প্রমাণ দেওয়া লিডস ইউনাইটেডকে আমরা এই জমজমাট ম্যাচটিতে কিছুটা হলেও এগিয়ে রাখব, কারণ তারা তাদের সর্বশেষ ম্যাচে একটি পূর্ণশক্তির চেলসি দলকে হারিয়েছে।

ব্রাইটন এন্ড হোভ এলবিয়ন ১ – ২ লিডস ইউনাইটেড

২.৫ গোলের উর্ধ্বে

লিডস ইউনাইটেড +১.০ (এশিয়ান হ্যান্ডিক্যাপ)

Share.
Leave A Reply