ক্রিস্টাল প্যালেস (Crystal Palace)

ম্যানচেস্টার সিটি’র বিরুদ্ধে এতিহাদ স্টেডিয়ামে হারার পর নিশ্চয় প্যালেস খেলোয়াড় ও সমর্থকরা তাদের ভাগ্যকেই দূষছেন।

প্যাট্রিক ভিয়েরার সৈন্যরা খুব জলদিই ম্যানচেস্টার সিটি’র বিরুদ্ধে ম্যাচটিতে নিজেদের জায়গা করে নেয়, এবং দুই গোলে এগিয়ে থেকে প্রথমার্ধ শেষ করে। তবে, দ্বিতীয়ার্ধে তাদের রক্ষণভাগ ছিন্ন বিচ্ছিন্ন করে দিতে সক্ষম হয় পেপ গার্দিওলা’র শিষ্যরা, যার ফলস্বরূপ তারা ৪-২ গোলে ম্যাচটি জিতে নেয়।

ম্যাচের প্রথমেই সিটি ডিফেন্ডার জোন স্টোনস একটি আত্মঘাতী গোল করে ক্রিস্টাল প্যালেসকে এগিয়ে দেন, এবং ২০ মিনিটের মাথায় এবেরিকে এজে’র নেওয়া কর্নার কিকে মাথা ছুঁইয়ে প্যালেস এর লিডকে দ্বিগুণ করে দেন ডিফেন্ডার জোয়াকিম এন্ডারসেন।

তবে, দ্বিতীয়ার্ধে তাদের স্বভাবসুলভ আচরণ শুরু করে সিটি। তচনচ করে দেয় প্যালেসের রক্ষণভাগকে। সিটিজেনদের হয়ে প্রথম গোলটি করেন বার্নার্দো সিলভা, যিনি কি না রাইট উইং দিয়ে কাট-ইন করে ডি বক্সের কিছুটা বাইরে থেকে একটি শট মারেন, যা কিছুটা ডিফ্লেক্টেড হয়ে প্যালেসের জালে জড়িয়ে পড়ে। তার সেই অনবদ্য ফিনিশিংয়ের পর এতিহাদ স্টেডিয়াম এবং সারা দুনিয়া অবাক হয়ে দেখেছে আকাশী নীল জার্সিতে আর্লিং হাল্যান্ড এর প্রথম হ্যাট্রিক। তার করা সেই গোলগুলি শুধু তার নিজের কৃতিত্বেই তৈরি হয়েছিল তেমনটি অবশ্যই নয়, কিন্তু তার শক্তিমত্তা ও বুদ্ধিদীপ্ততার পরিচয় তিনি প্রত্যেকটি গোলেই দিয়েছেন।

এরপর ক্রিস্টাল প্যালেস নিজেদের মাঠ সেলহাস্ট পার্কে এমন এক ব্রেন্টফোর্ড দলের সম্মুখীন হবে, যারা কি না তাদের সর্বশেষ ম্যাচে এভারটনকে হারাতে পারেনি।

ব্রেন্টফোর্ড (Brentford)

বিস খ্যাত ব্রেন্টফোর্ড নতুন মৌসুমে তাদের অসাধারণ সূচনাকে ধরে রাখতে পেরেছে।

নিজেদের মাঠ জি-টেক কমিউনিটি স্টেডিয়ামে খেলতে নেমেই এন্থোনি গর্ডন এর গোলে এভারটনের বিরুদ্ধে পিছিয়ে পড়ে ব্রেন্টফোর্ড। কিন্তু, তারপরও গ্যালেরিতে তাদের কোন সমর্থককে দেখেই মনে হয়নি যে তাদের আরো উৎফুল্ল হওয়া উচিৎ। যেন তারা সকলেই অপেক্ষা করে ছিলেন যে, তাদের দল সমতাসূচক গোলটি কখন করে।

পড়ুন:  ২০২২ কাতার বিশ্বকাপের শীর্ষ আন্ডারডগ দলগুলি নিয়ে আলোচনা

ম্যাচের ২৪ মিনিটের মাথায় এভারটন মিডফিল্ডার এন্থোনি গর্ডন তার দলকে এগিয়ে নেন একটি দূর্দান্ত ফিনিশ এর মাধ্যমে। প্রতিভাবান এই যুবা স্ট্রাইকারকে অনেক টাকার বিনিময়ে দলে নেওয়ার ফন্দি আঁটছে চেলসি।

তবে, ভিটালি জ্যানেল্ট এর করা একটি চমৎকার গোলের উপর ভর করে ম্যাচে সমতা ফেরায় ব্রেন্টফোর্ড। এভারটনের হাত থেকে খেলার নিয়ন্ত্রণ অনেকটাই কেড়ে নেয় ব্রাইটন। শেষ পর্যন্ত, দুই দলই একটি করে পয়েন্ট নিয়ে মাঠ ছাড়েন, যা আসলেই তাদের উভয়েরই প্রাপ্য ছিল।

এরপর থমাস ফ্র‍্যাংক এর ব্রেন্টফোর্ড খেলতে নামবে এমন একটি আহত ক্রিস্টাল প্যালেস দলের বিরুদ্ধে, যারা কি না তাদের সবশেষ ম্যাচে দুই গোলে এগিয়ে থেকেও ম্যানচেস্টার সিটিকে হারাতে না পারায় বেশ শোকাহতই রয়েছেন।

 

প্রেডিকশন (Prediction)

তিলে তিলে প্যাট্রিক ভিয়েরা ক্রিস্টাল প্যালেস ফুটবল ক্লাবে একটি পূর্ণাঙ্গ দল তৈরি করে ফেলেছেন, যেখানে গোলস্কোরিং ফরোয়ার্ড থেকে শুরু করে রক্ষণভাগের কান্ডারি পর্যন্ত সকলেই উপস্থিত রয়েছেন। অন্যদিকে, ব্রেন্টফোর্ড দলের বিভিন্ন স্থানে বা পজিশনে বহু ফাঁটল বিদ্যমান, বিশেষ করে তাদের রক্ষণভাগে, যেটির সুবিধা নিয়ে ক্রিস্টাল প্যালেস তাদেরকে পরাজয়ের দিকে ঠেলে দিবে বলেই আমরা ধারণা করছি।

ক্রিস্টাল প্যালেস ২ – ১ ব্রেন্টফোর্ড

১.৫ গোলের উর্ধ্বে

ক্রিস্টাল প্যালেস +১.০ (এশিয়ান হ্যান্ডিক্যাপ)

Share.
Leave A Reply