গত উইকেন্ডে প্রিমিয়ার লীগে এভারটনের বিরুদ্ধে মার্সিসাইড ডার্বিতে আবারো পয়েন্ট খোয়ানোর পর, লিভারপুল এবার আরও একটি কঠিন পরীক্ষার সম্মুখীন। তাদের চ্যাম্পিয়নস লীগ মৌসুমের প্রথম ম্যাচে খেলতে তারা ইতালির ন্যাপলস শহরে পাড়ি জমাবে, নাপোলির মুখোমুখি হওয়ার লক্ষ্যে।

উভয় দলই তাদের নিজ নিজ লীগে কিছুটা ধীরগতিসম্পন্ন সূচনা করেছে। কিন্তু, তারপরও এই ফিক্সচারটিকে সামনে রেখে একটি বিষয়ে তারা কেউই চিন্তিত থাকবে না, এবং সেটি হল তাদের প্রতিপক্ষকে চেনা। বিষ্ময়কর হলেও সত্যি যে, গত পাঁচ মৌসুমের মধ্যে তিনটিতেই এই দুই দল চ্যাম্পিয়নস লীগের একই গ্রুপে খেলেছে। তাই তারা একে অপরের ক্রীড়াকৌশল এবং খেলোয়াড়দের ভালো-মন্দ দিকগুলি সম্পর্কে অনেক বেশিই অবগত।

এর আগে যতবারই এই দুই দলের মধ্যে টক্কর হয়েছে, ততবারই লিভারপুল ফেভারিট ছিল ম্যাচটি জেতার জন্য, কিন্তু প্রতিবারই নাপোলি তাদেরকে আশ্চর্যান্বিত করেছে নিজেদের অনবদ্য পারফর্মেন্স দিয়ে। প্রতিবারের মত এবারও তারা ঘরের মাঠ এস্তাদিও দিয়েগো আর্মান্ডো মারাডোনাতে লিভারপুলকে অগণিত সমস্যার সম্মুখীন করতে চাইবে।

প্রতিবারই চ্যাম্পিয়নস লীগে এক বা একাধিক গ্রুপ থাকে যেগুলিকে ‘গ্রুপ অব ডেথ’ বলে আখ্যায়িত করা হয়। এবারের গ্রুপ স্টেজে লিভারপুল ও নাপোলি ছাড়াও আয়াক্স ও রেঞ্জার্স এর মত ক্লাব থাকায় গ্রুপ এ কেই অনেকে সেই গ্রুপ অব ডেথ মনে করছেন। তবে, অবশ্যই অন্য দু’টি ক্লাবের থেকে ইতিহাস ও সাম্প্রতিক ফর্মের দিক দিয়ে নাপোলি ও লিভারপুলকেই এগিয়ে রাখতে হবে। যদি উভয় দলেরই গ্রুপটিতে শীর্ষ স্থান দখল করার উদ্দেশ্য থেকে থাকে, তবে তাদের জন্য এই ম্যাচটিতে জেতার গুরুত্ব অপরিসীম।

 

ফর্ম বিবরণীঃ নাপোলি (Form Guide: Napoli)

নাপোলি তাদের ইংলিশ প্রতিপক্ষ লিভারপুলের মুখোমুখি হওয়ার আগে বেশ ইতিবাচক ভঙিতেই ওয়ার্ম আপ করে নিয়েছে। সিরি আ’তে তাদের সর্বশেষ ম্যাচে তারা লাৎসিও’র বিপক্ষে পিছিয়ে পড়েও শেষ পর্যন্ত ২-১ গোলে ম্যাচটি জিততে সক্ষম হয়। আপাতদৃষ্টিতে, পারফর্মেন্স এর দিক দিয়ে তাদের নতুন মৌসুমের শুরুটা খুব ভালো না হলেও তারা একের পর এক ভালো ফলাফল ঠিকই অর্জন করেছে। বর্তমানে পার্তেনোপি খ্যাত নাপোলি দলটি সিরি আ টেবিলের শিখরে ডিফেন্ডিং চ্যাম্পিয়ন এসি মিলানের সাথে সমন্বিতভাবে অবস্থান করছে।

পড়ুন:  সিটি বনাম বার্নলি (Norwich City Vs Burnley) 9

তবে, যে ব্যাপারটি নিয়ে নাপোলি কোচ লুসিয়ানো স্প্যালেত্তি সবচেয়ে বেশি দুশ্চিন্তায় থাকবেন তা হল গোলের সামনে তার দলের অপারগতা। লীগে এখন পর্যন্ত খেলা তাদের তিনটি ম্যাচের মধ্যে প্রথম দুইটিতে তারা যথাক্রমে ফিয়োরেন্টিনা এবং লেচ্চে’র বিরুদ্ধে ০-০ ও ১-১ গোলের ব্যবধানে ড্র করে। ম্যাচগুলিতে তাদের পারফর্মেন্স বেশ একঘেয়ে এবং অনাড়ম্বর ছিল। এরপর তাদের তৃতীয় ম্যাচে তারা গত উইকেন্ডে লাৎসিও’র বিপক্ষে একটি কষ্টার্জিত ২-১ গোলের জয় হাসিল করে নেয়।

২০১৯ সালে এনফিল্ডে অনুষ্ঠিত নাপোলি ও লিভারপুলের মধ্যকার সর্বশেষ ম্যাচটি ১-১ গোলে ড্র হয়েছিল। সেজন্যই নাপোলি নিশ্চয় আত্মবিশ্বাসী যে তারা এবারের ফিক্সচারটি থেকেও কিছু না কিছু নিয়েই মাঠ ছাড়তে পারবে।

 

ফর্ম বিবরণীঃ লিভারপুল (Form Guide: Liverpool)

লিভারপুল তাদের নতুন প্রিমিয়ার লীগ ক্যাম্পেইনে একটি শুভ সূচনা করতে পারেনি। যদিও এত তাড়াতাড়ি কোন সিদ্ধান্তে যাওয়াটা একপ্রকার বোকামিই হবে, তবুও যেহেতু বর্তমানে ম্যানচেস্টার সিটি প্রিমিয়ার লীগ একরকম শাসনই করছে, এবং খুব বেশি পয়েন্ট তারা ড্রপ করে না, সেহেতু এটি বলাই যায় যে, লিভারপুল ইতিমধ্যে প্রিমিয়ার লীগ শিরোপার দৌড়ে কিছুটা পিছিয়েই পড়েছে।

ইয়ুর্গেন ক্লপের অধীনে অল রেডস’রা এবারের মৌসুমে ইতিমধ্যে ফুলহ্যাম, ক্রিস্টাল প্যালেস এবং এভারটন এর মত দলের নিকট পয়েন্ট খুইয়েছে, এবং ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডের নিকট পরাজয় বরণ করেছে। যদিও এএফসি বোর্নমাউথের বিরুদ্ধে তারা ৯-০ গোলের বিশা ব্যবধানে জিততে সক্ষম হয়, তবুও তারা ঘরের মাঠে নিউক্যাসেলের বিরুদ্ধে অনেক কষ্টে এবং রেফারির কিছু বিতর্কিত বা সমালোচিত সিদ্ধান্তের পরেই গিয়ে জয়লাভ করতে পেরেছিল।

বিষ্ময়কর হলেও সত্যি যে, গুডিসন পার্কে এভারটনের বিরুদ্ধে তাদের সর্বশেষ ম্যাচটিতে লিভারপুলকে ম্যাচের অধিকাংশ সময় জুড়েই ডিফেন্স করতে হয়েছে, এবং শেষ পর্যন্ত তারা অনেক কষ্ট করেই এক পয়েন্ট নিয়ে ঘরে ফিরতে সক্ষম হয়েছে।

পূর্ণ শক্তির লিভারপুল দলের জন্যও নাপোলির বিরুদ্ধে জয় হাসিল করা একটি কষ্টসাধ্য ব্যাপার হতো, আর সেখানে বর্তমান লিভারপুল দলটি ইঞ্জুরিতে বেশ জর্জরিত, এবং মোটেও তাদের সেরা ফর্মে নেই। এমতাবস্থায়, ইয়ুর্গেন ক্লপ নিশ্চয় চাইবেন যেন চ্যাম্পিয়নস লীগে তার দলের সূচনা একটি হারের মধ্য দিয়ে না হয়।

পড়ুন:  প্যালেস বনাম ম্যান সিটি: নাগরিকরা আর্সেনালের উপর শিরোপা চাপ বজায় রাখে

 

প্রেডিকশন (Prediction)

নাপোলি ও তাদের কোচ স্প্যালেত্তি নিশ্চয় খেয়াল করেছেন যে লিভারপুল তাদের মৌসুমের সূচনাটি খুব একটা ইতিবাচক ভঙিতে করতে পারেনি, এবং সেজন্যই তারা ঘরের মাঠে সেই স্ট্রাগলিং লিভারপুল দলের বিরুদ্ধে জয় ছিনিয়ে আনার চেষ্টাই করবেন। নির্দিষ্টভাবে বলতে গেলে, এই ইতালিয়ান জায়ান্টস’রা জানেন যে কিভাবে একটি সফরকারী দলের থেকে তিন পয়েন্ট ছিনিয়ে নিতে হয়। তাদের লক্ষ্য থাকবে লিভারপুলকে পুরো ম্যাচটিতেই স্নায়ুচাপে রাখা, এবং সেটি নিশ্চিত করার সর্বোৎকৃষ্ট পন্থা হল ম্যাচটিতে একটি আর্লি গোল করা।

লিভারপুলের দিক থেকে দেখলে, বর্তমানে তাদের দলের খেলোয়াড়দের মধ্যে মিলবন্ধনের কিছুটা অভাব পরিলক্ষিত হচ্ছে, এবং তা হবেই না বা কেন। তাদের মিডফিল্ডের অর্ধেকের বেশি খেলোয়াড়ই যে ইঞ্জুরির কারণে বর্তমানে মাঠের বাইরে রয়েছে! এছাড়া, নতুন স্ট্রাইকার ডারউইন নুনেজ তার প্রথম কয়েকটি ম্যাচে খুব একটা নজর কাড়তে পারেননি, এবং মোহাম্মদ সালাহ্ও গোলের সামনে তার স্বভাবসুলভ ছোঁয়া প্রদান করতে পারছেন না।

আমরা মনে করি যে, এই ম্যাচটিতে দুই দলের মধ্যে ব্যবধান খুবই স্বল্প থাকবে, এবং যে দল গোলের সামনে সুযোগগুলির অধিকতর সদ্ব্যবহার  করতে পারবে, সে দলের জয়ের সম্ভাবনাই বেশি থাকবে। তবে, যেহেতু উভয় দলই বর্তমানে গোলের সামনে নিষ্প্রাণ ভূমিকা পালন করছে, সেহেতু আমরা ধারণা করছি যে, এই ম্যাচটি একটি স্কোর ড্র হতে চলেছে।

নাপোলি ১ – ১ লিভারপুল

৩.৫ গোলের নিম্নে

নাপোলি +১.০ (এশিয়ান হ্যান্ডিক্যাপ)

Share.
Leave A Reply