আন্তর্জাতিক বিরতিতে যাওয়ার আগে নিজেদের সর্বশেষ ম্যাচে মলিনিউ স্টেডিয়ামে মুখোমুখি হবে ওলভারহ্যাম্পটন ওয়ান্ডারার্স এবং প্রিমিয়ার লীগের ডিফেন্ডিং চ্যাম্পিয়ন ম্যানচেস্টার সিটি। দুই দলের প্রয়োজন সম্পূর্ণরূপেই ভিন্নধর্মী হলেও তারা উভয়েই ম্যাচটিতে তিন পয়েন্ট অর্জনের লক্ষ্যেই খেলবে।

সাম্প্রতিক সময়ে এই ফিক্সচারটিতে অবশ্যই ম্যানচেস্টার সিটি’রই আধিপত্য বজায় রয়েছে, এবং এবারের ম্যাচটিতেও ফুটবল বোদ্ধাদের মতে সিটিজেনরাই হট ফেভারিটস।

 

প্রেডিকশন (Prediction)

আন্তর্জাতিক বিরতির আগে আর্সেনালের উপর সর্বোচ্চ চাপ প্রয়োগ করার উদ্দেশ্যে ম্যানচেস্টার সিটি এই ম্যাচটিতে কোনক্রমেই কোন পয়েন্ট হারাতে পারবে না, এবং আমরাও মবে করি যে, এই ম্যাচটিতে তাদের জয়ের সম্ভাবনাই অনেক বেশি। গোল স্কোর করাকে এক ধরবের নেশায় পরিণত করেছেন সিটি স্ট্রাইকার আর্লিং হাল্যান্ড, এবং তাকে প্রতি ম্যাচে গোল উদযাপণ করতে দেখাটাকেও বোধ হয় এখন আমাদের অভ্যাসেই পরিণত করে নেওয়া উচিৎ।

ওলভারহ্যাম্পটন ওয়ান্ডারার্স ১ – ৩ ম্যানচেস্টার সিটি

২.৫ গোলের উর্ধ্বে

ম্যানচেস্টার সিটি -১.০ (এশিয়ান হ্যান্ডিক্যাপ)

 

ফর্ম বিবরণীঃ ওলভারহ্যাম্পটন ওয়ান্ডারার্স (Form Guide: Wolverhampton Wanderers)

ওলভস তাদের সর্বশেষ ম্যাচে সাউথ্যাম্পটনের বিরুদ্ধে তাদের মৌসুমের প্রথম জয়ের দেখা পেয়েছে, কিন্তু এবার তাদের সামনে লীগের প্রধান রাঘব বোয়াল ডিফেন্ডিং চ্যাম্পিয়ন ম্যান সিটি।

বিষ্ময়কর হিলেও সত্যি যে, এবারের মৌসুমে এখন পর্যন্ত প্রিমিয়ার লীগে সবচেয়ে কম গোল দেওয়া দলটি হল ওলভারহ্যাম্পটন ওয়ান্ডারার্স। তবে, যখন তাদের সাজানো গোছানো ডিফেন্স ম্যানচেস্টার সিটি’র ভয়ানক স্ট্রাইকার ও গোল মেশিন আর্লিং হাল্যান্ড এর মুখোমুখি হবে, তখন তা তচনচ হয়ে যেতে খুব বেশি সময় নাও লাগতে পারে। 

 

ফর্ম বিবরণীঃ ম্যানচেস্টার সিটি (Form Guide: Manchester City)

ম্যানচেস্টার সিটি আরো একটি বার নিজেদের জাত চিনিয়েছে, যখন তারা গত মিডউইকে এতিহাদ স্টেডিয়ামে উয়েফা চ্যাম্পিয়নস লীগের গ্রুপ পর্যায়ের ম্যাচে বরুশিয়া ডর্টমুন্ড এর বিরুদ্ধে ১ গোল পিছিয়ে পড়ার পরেও মাত্র ৫ মিনিটের মধ্যে দুইটি গোল করে ম্যাচটি জিতে নিতে সক্ষম হয়।

পড়ুন:  আরসেনাল বনাম উলভের প্রিভিউ

আপনারা ঠিকই অনুমান করেছেন, যদি আপনারা ভেবে থাকেন যে সেই দুইটি গোলের মধ্যে কোন না কোনভাবে আর্লিং হাল্যান্ড জড়িত ছিলেন। হ্যাঁ, তিনি চ্যাম্পিয়নস লীগে তার ক্যারিয়ারের ২৬তম গোলটি তুলে নেন, যা ছিল অসাধারণ এক্রোব্যাটিক্স এর একটি নিদর্শন এবং খেলার জয়সূচক গোল। তার সাবেক দলের বিপক্ষে করা এই গোলটি সম্মান প্রদর্শন পূর্বক তিনি উদযাপন অবশ্য করেননি।

গোলটি করার ফলে এখন ম্যানচেস্টার সিটিতে যোগ দেওয়ার পর থেকে ৮ ম্যাচ খেলে তার করা গোলের সংখ্যা উঠে দাড়ালো ১৩তে। এতিহাদ স্টেডিয়ামে ইতিমধ্যে তিনি এক স্বপ্নের নামে পরিণত হয়েছেন।

 

ওলভারহ্যাম্পটন ওয়ান্ডারার্স বনাম ম্যানচেস্টার সিটি সম্পর্কিত কিছু তথ্য (Wolverhampton Wanderers Vs Manchester City Facts)

  • ম্যানচেস্টার সিটি’র বিরুদ্ধে ওলভসের সর্বশেষ ৪টি জয়ের মধ্যে তিনটিই এসেছে তাদের ঘরের মাঠ মলিনিউ স্টেডিয়ামে। সেই তিনটি ম্যাচ মলিনিউয়ে অনুষ্ঠিত হয়েছিল যথাক্রমে ২০০৩-০৪, ২০১০-১১ এবং ২০১৯-২০ মৌসুমে।
  • ২০১৯-২০ মৌসুমে উভয় লেগেই সিটিজেন’দেরকে হারাতে সক্ষম হয়েছিল ওলভারহ্যাম্পটন ওয়ান্ডারার্স। কিন্তু, তারপর থেকে যে চারবার তারা ম্যানচেস্টার সিটি’র মুখোমুখি হয়েছে, তার প্রত্যেকটিতে তারা শুধু হারেইনি, সম্মিলিতভাবে ১৩-৩ গোলের বিশাল ব্যবধানে হেরেছে।
  • তাদের সর্বশেষ ম্যাচে সাউথ্যাম্পটনকে হারানোর মাধ্যমে ওলভারহ্যাম্পটন ওয়ান্ডারার্স তাদের খেলা সর্বশেষ ১৩টি ম্যাচের মধ্যে প্রথম জয়ের দেখা পেয়েছে। ২০২১ সালের নভেম্বর মাসের পর থেকে এখন তাদের সামনে প্রথম বারের মত সুযোগ টানা দুইটি হোম লীগ ম্যাচ জেতার।
  • প্রিমিয়ার লীগে তাদের সর্বশেষ ৭টি ম্যাচজুড়ে ওলভস ম্যাচের দ্বিতীয়ার্ধে গোল করতে সক্ষম হয়নি। লীগে তাদের ইতিহাসে এটিই তাদের জন্য এই বিষয়ে সর্ববৃহৎ ধারা। গত বছরের অক্টোবর ও ডিসেম্বরের মাঝামাঝি পর পর ৮টি ম্যাচে সাউথ্যাম্পটন ম্যাচের দ্বিতীয়ার্ধে গোল করতে অক্ষম হয়, যা বর্তমানে এমন সর্ববৃহৎ ধারা। 
  • ম্যানচেস্টার সিটি তাদের খেলা সর্বশেষ ২১টি অ্যাওয়ে লীগ ম্যাচের সবকটিতেই জয় ছিনিয়ে আনতে সক্ষম হয়েছে (১৫টি জয়, এবং ৬টি ড্র)। এই ধারাটি চলে আসছে গত মৌসুমে সিটিজেনদের প্রথম ম্যাচের পর থেকে, যেখানে তারা টটেনহ্যাম হটস্পার্স এর বিরুদ্ধে লন্ডনের টটেনহ্যাম হটস্পার্স স্টেডিয়ামে গিয়ে হেরেছিল। তিবে, তারা তাদের খেলা সর্বশেষ দুইটি অ্যাওয়ে ম্যাচেই ড্র করেছে। ২০২০ সালের জুলাই মাসের পর থেকে এমনটি একবারও হয়নি যে তারা পর পর তিনটি অ্যাওয়ে ম্যাচে জিততে পারেনি।
পড়ুন:  Borussia Dortmund vs Newcastle প্রিভিউ

 

যেসকল খেলোয়াড়দের উপর সকলের নজর থাকবে (Players to watch out for)

  • প্রিমিয়ার লীগে অন্য কোন দলের বিরুদ্ধে কেভিন ডি ব্রুয়না এত বেশি গোল করেননি, যতগুলি তিনি করেছেন ওলভসের বিরুদ্ধে (৫)। গত মৌসুমের এই ফিক্সচারটিতে ম্যান সিটি’র ৫-১ গোলের জয়েই এসেছিল তার মধ্য থেকে ৪টি গোল।
  • এবারের মৌসুমে এখন পর্যন্ত ওলভসের করা ৩টি গোলের মধ্যে দুইটিই করেছেন ওলভস উইংগার ড্যানিয়েল পডেন্স। প্রিমিয়ার লীগের সম্মিলিত স্কোরশিটে ওলভসের চেয়ে কম খেলোয়াড় আর কোন দলের নেই (২)। এই মৌসুমে ৬টি ম্যাচ খেলেই ড্যানিয়েল পডেন্স তার গত মৌসুমের গোল ট্যালি ছুঁয়ে ফেলেছেন (২৬ ম্যাচে ২ গোল)।

  • ম্যানচেস্টার সিটি’র খেলা সর্বশেষ ৩টি অ্যাওয়ে ম্যাচের মধ্যে প্রত্যেকটিতেই গোল করেছেন তাদের তারকা স্ট্রাইকার আর্লিং হাল্যান্ড। প্রিমিয়ার লীগের ইতিহাসে নিজের প্রথম চারটি অ্যাওয়ে ম্যাচে গোল করতে পেরেছেন, এমন স্ট্রাইকারের নজির আজ পর্যন্ত মিলেনি।
Share.
Leave A Reply