...

প্রেডিকশন (Prediction)

আর্সেনাল ২ – ১ টটেনহ্যাম হটস্পার্স

২.৫ গোলের উর্ধ্বে

আর্সেনাল +১.০ (এশিয়ান হ্যান্ডিক্যাপ)

 

গুরুত্বপূর্ণ দিকসমূহ (Key Points)

  • এখন পর্যন্ত এবারের মৌসুমে আর্সেনাল সকল প্রতিযোগিতায় কেবলমাত্র একটি ম্যাচেই হেরেছে (ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড এর বিরুদ্ধে)।
  • উভয় দলই তাদের খেলা সর্বশেষ চারটি ম্যাচের মধ্যে তিনটিতেই ২টি করে গোল করতে সমর্থ্য হয়েছে।
  • সকল ধরনের প্রতিযোগিতায় আর্সেনাল তাদের খেলা সর্বশেষ ৫টি ম্যাচের মধ্যে শুধুমাত্র একটিতেই ক্লিন শিট রাখতে সমর্থ্য হয়েছে।
  • প্রিমিয়ার লীগে এখনো পর্যন্ত অপরাজিত থাকা দুইটি ক্লাবের মধ্যে একটি হল টটেনহ্যাম হটস্পার্স (৫টি জয়, ২টি ড্র)। এছাড়া, শুধুমাত্র ম্যানচেস্টার সিটিই (২৩) এখন পর্যন্ত পেরেছে লীগে এন্তোনিও কন্তে’র শিষ্যদের চেয়ে (১৮) বেশি গোল করতে।

 

ফর্ম বিবরণীঃ আর্সেনাল (Form Guide: Arsenal)

প্রিমিয়ার লীগ টেবিলের শীর্ষস্থানে থেকেই আর্সেনাল এই নর্থ লন্ডন ডার্বিতে প্রবেশ করতে চলেছে। নতুন মৌসুমের প্রথম পাঁচটি ম্যাচেই জয়ের দরুণ তারা সেটি নিশ্চিত করেছে। এটি ছিল কোন মৌসুমে তাদের ইতিহাসের সবচেয়ে ভালো সূচনা। তারা অবশ্য পথিমধ্যে একবার হোঁচট খেয়েছে। ওল্ড ট্রাফোর্ডে অনুষ্ঠিত সেই ম্যাচটিতে তারা ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডের বিরুদ্ধে ৩-১ গোলে পরাজিত হয়েছিল।

 

তবে, সেই সেটব্যাক থেকে তৎক্ষনাৎ ফিরে এসে তারা আন্তর্জাতিক বিরতির ঠিক পূর্বেই ব্রেন্টফোর্ডকে ০-৩ গোলে উড়িয়ে দিতে সক্ষম হয়। ম্যাচটিতে আর্সেনাল আরো একটি ইতিহাস গড়ে তোলে। ১৫ বছর বয়সী ইথান নোয়ানেরি গানারস’দের হয়ে সেই ম্যাচটিতে অভিষিক্ত হোন। এর মাধ্যমে তিনিই পেয়ে গেলেন প্রিমিয়ার লীগে অভিষিক্ত হওয়া সর্বকালের সর্বকনিষ্ঠ খেলোয়াড়ের তকমাটি।

আর্সেনাল কোচ মিকেল আর্তেতা’র সামনে অবশ্য বেশ কিছু ইঞ্জুরি সমস্যা পাখা মেলেছে যা পরবর্তী ম্যাচে তাকে অসুবিধায় ফেলতে পারে দল নির্বাচনের ক্ষেত্রে। তবে, তার জন্য স্বস্তির ব্যাপার হল তার দলের অধিনায়ক মার্টিন ওডেগার্ড এবং আরেক মিডফিল্ডার থমাস পার্টেই ইঞ্জুরি থেকে ফিরেছেন, এবং পরবর্তী ম্যাচে উপলব্ধ থাকবেন।

প্রিমিয়ার লীগে এখন পর্যন্ত আর্লি পেস-সেটার্স হিসেবে নিজেদেরকে সংস্থাপন করতে পেরেছে গানারস’রা। তবে, তারা শিরোপার জন্য আদৌ লড়াই করতে পারবে কি না সে ব্যাপারে এখনও প্রচুর প্রশ্নচিহ্ন রয়েছে। অক্টোবার মাসে গানারস’দের সামনে কিছু কঠিন ফিক্সচার অপেক্ষা করছে, যার প্রথমটি হল টটেনহ্যাম হটস্পার্স এর বিরুদ্ধে এই ম্যাচটি। এখানে তাদের পারফর্মেন্স দেখলেই বোঝা যাবে যে তারা আসলেও এবারের মৌসুমে শিরোপা প্রত্যাশী হিসেবে নিজেদেরকে সত্যিকার অর্থে মেলে ধরতে পারবে কি না।

 

ফর্ম বিবরণীঃ টটেনহ্যাম হটস্পার্স (Form Guide: Tottenham Hotspurs)

টটেনহ্যাম হটস্পার্স তাদের নিজস্ব মৌসুমে একটি শুভ সূচনা (৫টি জয় ও ২টি ড্র নিয়ে এখনও পর্যন্ত অপরাজিত) করার পর এবার নিজেদের গন্ডি থেকে বের হয়ে ছোট্ট পথ অতিক্রম করে শহরের আরেক প্রান্তে এমিরেটস স্টেডিয়ামে পাড়ি জমাতে যাচ্ছে। লীগ টেবিলের শীর্ষে থাকা চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী আর্সেনালের বিরুদ্ধে যদি তারা একটি জয় হাসিল করতে পারে, তাহলে অন্তত রবিবার পর্যন্ত তারা লীগ টেবিলের শীর্ষে অবস্থান করতে পারবে।

তবে, এই ডার্বি ম্যাচটিতে ভালো কোন ফলাফল পেতে হলে তাদেরকে এই ফিক্সচারের সাম্প্রতিক ইতিহাসকে কিছুটা হলেও পরিবর্তন করতে হবে, কারণ এমিরেটস স্টেডিয়ামে প্রিমিয়ার লীগে তাদের সাম্প্রতিক রেকর্ড বেশ শোচনীয়। তাদের চিরপ্রতিদ্বন্দ্বীদের ঘরের মাঠে স্পার্স সর্বশেষ জয় হাসিল করতে পেরেছিল ২০১০ সালে। তারপর থেকে তারা সেখানে ৪টি ড্র ও ৭টি পরাজয় এর দেখাই পেয়েছে মাত্র।

এবারের মৌসুমে এখন পর্যন্ত টটেনহ্যাম হটস্পার্স তাদের খেলা অ্যাওয়ে ম্যাচগুলির মধ্যে শুধুমাত্র একটিতেই জয়লাভ করতে পেরেছে (বাকি দুইটিই ড্র হয়েছে)। সেই একটি জয়ও এসেছে একটি প্রমোটেড দলের বিরুদ্ধে। তবে, কোচ এন্তোনিও কন্তে এটি ভেবে কিছুটা নিশ্চিন্ত হবেন যে, এবারের মৌসুমে তার তিন প্রধান আক্রমণাত্মক হাতিয়ার হ্যারি কেইন, সন হিউং মিন, এবং রিচার্লিসন এর মধ্যে সকলেই সদ্য সমাপ্ত আন্তর্জাতিক বিরতিতে গোলের দেখা পেয়েছেন, এবং তাদের উজ্জ্বল ফর্ম ধরে রাখতে পেরেছেন। স্পার্স কোচ কন্তে’রও এমিরেটস স্টেডিয়ামে যেন এক ধরনের অভিশাপ লেগেই রয়েছে, কারণ চেলসি ও স্পার্সের হয়ে তিনি স্টেডিয়ামটিতে পাঁচবার সফর করলেও একটি বারও জয় নিয়ে ঘরে ফিরতে পারেননি (১টি ড্র, ৪টি পরাজয়)। এবার তিনি অবশ্যই সেই অভিশাপটি ভাঙতে চাইবেন।

 

আর্সেনাল বনাম টটেনহ্যাম হটস্পার্স সম্পর্কিত কিছু তথ্য (Arsenal Vs Tottenham Hotspurs Facts)

  • আর্সেনাল তাদের চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী স্পার্সের বিরুদ্ধে খেলা তাদের সবশেষ ২টি হোম ম্যাচেই জয়ের দেখা পেয়েছে। এর আগে তারা পর পর তিনটি হোম ম্যাচে স্পার্সকে হারাতে পেরেছিল ২০১২ সালের ফেব্রুয়ারি থেকে ২০১৩ সালের সেপ্টেম্বরের মাঝামাঝি।

 

  • টটেনহ্যাম হটস্পার্স তাদের আর্চ-রাইভালস আর্সেনালের বিপক্ষে সর্বশেষ তিনবার খেলতে নেমে দুইবারই হারের স্বাদ পেয়েছে (বাকি একটিতে জয়)। এর আগে সমান সংখ্যক পরাজয় দেখতে তাদেরকে আর্সেনালের বিরুদ্ধে লীগে ১৩ বার মাঠে নামতে হয়েছিল (৫টি জয়, ৬টি ড্র)।

 

  • গানারস’রা টটেনহ্যাম হটস্পার্স এর বিরুদ্ধে নিজের মাঠে খেলা তাদের সর্বশেষ ২৯টি ম্যাচের মধ্যে শুধুমাত্র একটিতেই হেরেছে (১৭টি জয়, ১১টি ড্র)। এছাড়া তারা একই প্রতিপক্ষের বিরুদ্ধে তাদের সর্বশেষ ১১টি হোম ম্যাচে অপরাজিত রয়েছে। সর্বশেষ তারা স্পার্সের নিকট হেরেছিল ২০১০ সালের নভেম্বর মাসে, ৩-২ গোলের ব্যবধানে।

 

  • আর্সেনালের বিরুদ্ধে সকল প্রতিযোগিতায় খেলা তাদের সর্বশেষ ১০টি ম্যাচের প্রত্যেকটিতেই স্পার্স অন্ততপক্ষে ১টি গোল করতে সক্ষম হয়েছে। এটি আর্সেনালের বিরুদ্ধে তাদের দ্বিতীয় সর্বোচ্চ স্কোরিং রান (১০ ম্যাচ অবধি)। এর আগে ১৯৫৫ থেকে ১৯৬৭ সাল এর মধ্যে তারা আর্সেনালের বিরুদ্ধে টানা ২৪টি ম্যাচে গোল করতে সক্ষম হয়েছিল।

 

  • ২০০৭ সালের ডিসেম্বর মাসের পর থেকে এমনটি প্রথমবার হতে চলেছে যে নর্থ লন্ডন ডার্বির সময় আর্সেনাল বা টটেনহ্যাম হটস্পার্স এর মধ্য থেকে কোন একটি দল প্রিমিয়ার লীগ টেবিলের শীর্ষে অবস্থান করছে। সেবারে লীগ লিডার আর্সেনাল এমিরেটস স্টেডিয়ামে ২-১ গোলের ব্যবধানে ম্যাচটি জিতে নিয়েছিল। এই ম্যাচটি যদি ড্র না হয়, তাহলে প্রিমিয়ার লীগের ইতিহাসে এমনটি প্রথমবারের মত হতে চলেছে যে, এই দুই দলের মধ্যে একটি দল অপর দলকে হারিয়ে লীগ টেবিলের শীর্ষে উঠে যাচ্ছে।

 

যেসকল খেলোয়াড়দের উপর সবার নজর থাকবে (Players to watch out for)

গ্যাব্রিয়েল জেসুস – আর্সেনাল (Gabriel Jesus – Arsenal)

ব্রাজিলিয়ান এই তারকা ফরোয়ার্ড আর্সেনালে যোগ দেওয়ার পর থেকেই বেশ আলোড়ন সৃষ্টি করতে পেরেছেন, এবং ক্লাবটির হয়ে মাত্র ৭টি ম্যাচ খেলেই তিনি ইতিমধ্যে ৪টি গোল ও ৩টি এসিস্টও তুলে নিয়েছেন। তার আগমণের ফলেই গানারস’দের আক্রমণভাগ আরেক ধাপ উপরে উঠে গিয়েছে, এবং মূলত সে কারণেই তারা বর্তমানে প্রিমিয়ার লীগ টেবিলের শীর্ষে অবস্থান করছে।

এরই সাথে সাথে গ্যাব্রিয়েল জেসুস তার খেলা প্রথম নর্থ লন্ডন ডার্বিতে এক বা একাধিক গোল বা এসিস্ট করে অবশ্যই একরকম ছাপ ছাড়তে চাইবেন। সেটি করার মাধ্যমে তিনি তার অবাক করা রেকর্ডটি চালিয়ে নিতেই চাইবেন। হ্যাঁ, সত্যিই প্রিমিয়ার লীগে তার খেলা যে ৬১টি ম্যাচে তিনি গোল করেছেন, তার একটিতেও তার দল হারেনি।

 

হ্যারি কেইন – টটেনহ্যাম হটস্পার্স (Harry Kane – Tottenham Hotspurs)

এই ফিক্সচারে হ্যারি কেইন এর আলাদা করে কোন ভূমিকাই দেওয়ার প্রয়োজন নেই। চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী আর্সেনালের বিরুদ্ধেই তিনি তার ক্যারিয়ারের সবচেয়ে বেশি সংখ্যক গোল (১৩টি) করতে সক্ষম হয়েছেন।

দুই দলের সর্বশেষ মোকাবেলায় তিনি জোড়াগোল করতে সমর্থ্য হয়েছিলেন, এবং অতি পরিচিত এই প্রতিপক্ষের বিরুদ্ধে যে তিনি তার অসাধারণ ফর্ম ও গোলের ধারা বজায় রাখার জন্য বদ্ধপরিকর থাকবেন, এ ব্যাপারে কোনই সন্দেহ নেই।

 

আর্সেনাল বনাম টটেনহ্যাম হটস্পার্স প্রেডিকশন (Arsenal Vs Tottenham Hotspurs Prediction)

যদিও সাম্প্রতিক কয়েকটি মৌসুম যাবৎ এই ফিক্সচারের জয়ী দলটিকে প্রেডিক্ট করা খুবই কঠিন হয়ে পড়েছে, তবুও সব মিলিয়ে গত কয়েক বছরের ফলাফলের ভিত্তিতে টটেনহ্যাম হটস্পার্সকেই কিছুটা এগিয়ে রাখতে হয়। কিন্তু, এটিও ভুললে চলবে না যে, এবার তারা মুখোমুখি হতে চলেছে একটি অন্যরকম আর্সেনাল দলের। গানারস’রা অবশ্যই বুঝতে পেরেছে যে, এই ফিক্সচারটিতে গত বেশ কিছু মৌসুমের চেয়ে শ্রেয় পারফর্ম করার পাশাপাশি তাদেরকে যেভাবেই হোক সেখান থেকে সর্বোচ্চ পয়েন্ট অর্জন করতেই হবে। নতুবা, ৩টি (বা ২টি) পয়েন্ট হারানোর পাশাপাশি তাদের মনোবলও অনেকটাই কমে যাবে। তাই, এবার তারা ম্যাচটি জেতার জন্য মরিয়া হয়েই নামবে। এছাড়া সাম্প্রতিক ফর্মের বিচারে আমরা তাই আর্সেনালকেই এই ম্যাচটিতে খুবই স্বল্প ব্যবধানে এগিয়ে রাখব।

Share.

Leave A Reply

Seraphinite AcceleratorOptimized by Seraphinite Accelerator
Turns on site high speed to be attractive for people and search engines.