প্রেডিকশন (Prediction)

    ম্যানচেস্টার সিটি ৩ – ১ ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড

    ২.৫ গোলের উর্ধ্বে

    ম্যানচেস্টার সিটি -১.০ (এশিয়ান হ্যান্ডিক্যাপ)

     

    গুরুত্বপূর্ণ দিকসমূহ (Key notes)

    • এবারের মৌসুমে এখন পর্যন্ত সকল প্রতিযোগিতায় অপরাজিত রয়েছে ম্যানচেস্টার সিটি।
    • ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড সকল প্রতিযোগিতায় তাদের খেলা সর্বশেষ ৬টি ম্যাচের মধ্যে ৫টিতেই অপরাজিত রয়েছে।
    • ম্যানচেস্টার সিটি সকল প্রতিযোগিতায় তাদের খেলা সর্বশেষ ৬টি ম্যাচের ৫টিতেই ২.৫ গোলের উর্ধ্বে স্কোর করতে সক্ষম হয়েছে।
    • ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড সকল প্রতিযোগিতায় তাদের খেলা সর্বশেষ ৫টি ম্যাচ মিলিয়ে শুধুমাত্র দুইটি গোল হজম করেছে।

     

    ফর্ম বিবরণীঃ ম্যানচেস্টার সিটি (Form Guide: Manchester City)

    ম্যানচেস্টার সিটিকে বর্তমানে বর্ণণা করতে গেলে শুধুমাত্র তাদের নতুন স্ট্রাইকার আর্লিং ব্রাউত হাল্যান্ড এর অনবদ্য গোলস্কোরিং ক্ষমতার কথাই মাথায় আসে। এবং, তার খেলা দেখে মোটেও মনে হচ্ছে না যে, তার এই গোলস্কোরিং ফর্ম খুব তাড়াতাড়ি কমতে যাচ্ছে। লম্বা ও দীর্ঘকায় এই ২২ বছর বয়সী নরওয়েজিয়ান ফরোয়ার্ড ইতিমধ্যে সিটিজেনদের হয়ে ১৪টি গোল করে ফেলেছেন, এবং এভাবে চলতে থাকলে এবারের প্রিমিয়ার লীগ মৌসুমে তার জন্য ৪০ গোলের মাইলফলকটি ছোঁয়া কোন ব্যাপারই হবে না।

    তবে, পেপ গার্দিওলা’র দলটি শুধুমাত্র হাল্যান্ডের উপর নির্ভরশীল নয়, কারণ বর্তমান মৌসুমে প্রিমিয়ার লীগে এখন পর্যন্ত অপরাজিত রয়েছে এমন দু’টি দলের একটি হল ম্যান সিটি (অপরটি স্পার্স)। গোল করা নিয়ে তাদেরকে মোটেও চিন্তায় থাকতে হয়নি, কারণ এ পর্যন্ত তারা প্রিমিয়ার লীগে মাত্র ২টি ম্যাচ ব্যতীত সকল ম্যাচেই কমপক্ষে ৩টি করে গোল করতে সক্ষম হয়েছে।

     

    ফর্ম বিবরণীঃ ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড (Form Guide: Manchester United)

    ব্রাইটন এন্ড হোভ এলবিয়ন এবং ব্রেন্টফোর্ডের বিরুদ্ধে মৌসুমের প্রথম দুই ম্যাচেই পরাজিত হওয়ার পর ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড তাদের ভাগ্য পরিবর্তন করতে সক্ষম হয়েছে। তারা আবারও ভালো ফর্মে ফিরেছে। তারা বর্তমানে একটি চার ম্যাচের জয়ের ধারায় অবস্থান করছে, যার মধ্যে রয়েছে চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী লিভারপুল ও লীগ লিডার্স আর্সেনালের বিরুদ্ধে প্রাপ্ত দু’টি বিশাল জয়।

    পড়ুন:  ক্যামেরুন বনাম ব্রাজিল প্রিভিউ এবং প্রেডিকশনঃ দু'দলের জন্যই গুরুত্বপূর্ণ ফিক্সচার

    যদিও এর মাঝে তারা উয়েফা ইউরোপা লীগে রিয়াল সোসিয়াদাদ এর নিকট ১-০ গোলে হেরেছে, তবুও আন্তর্জাতিক বিরতির ঠিক আগে তারা একই প্রতিযোগিতায় শেরিফ তিরাস্পোলকে ২-০ গোলে হারিয়ে জয়ের ধারায়ও ফিরেছে। এর মাঝামাঝি ক্রিস্টাল প্যালেসের বিরুদ্ধে তাদের ম্যাচটি পরিত্যক্ত ঘোষিত হয়েছিল।

    রেড ডেভিলরা বর্তমানে অনেকটাই সুষ্ঠু ভঙিতে নিজেদের ক্রীড়ানৈপূণ্য প্রদর্শন করে চলেছে, এবং সিটিজেনদের মুখোমুখি হওয়ার লক্ষ্যে এটি তাদের জন্য একটি মোক্ষম সময়, কারণ বহুদিন পর তারা এমন একটি জয়ের ধারায় রয়েছে।

     

    ম্যানচেস্টার সিটি বনাম ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড সম্পর্কিত কিছু তথ্য (Manchester City Vs Manchester United Game Facts)

    • এই ম্যাচটিতে জেতার মাধ্যমে ম্যান সিটি তাদের চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী ম্যান ইউনাইটেডের বিরুদ্ধে টানা তিনটি ম্যাচ জেতার ফন্দি আঁটছে। ২০১৩ সালের এপ্রিল থেকে শুরু করে ২০১৪ সালের নভেম্বর পর্যন্ত সময়কালে তারা সর্বশেষ এমন টানা চারটি ম্যাচে ইউনাইটেডকে হারাতে পেরেছিল।
    • ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড প্রিমিয়ার লীগে ম্যানচেস্টার সিটি’র নিকট সর্বমোট ১৭টি ম্যাচে পরাজয় বরণ করেছে। তাদের প্রিমিয়ার লীগ ইতিহাসে তারা শুধুমাত্র লিভারপুল (১৮), এবং চেলসি’র (১৮) নিকটই এর চেয়ে বেশি বার হেরেছে।
    • প্রিমিয়ার লীগে ম্যানচেস্টার সিটি এবং ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড এর মধ্যকার ফিক্সচারগুলিতে সর্বমোট ২১ বার অ্যাওয়ে দল জয়লাভ করেছে। প্রিমিয়ার লীগের ইতিহাসে আর কোন ফিক্সচারেই এর থেকে বেশি বার অ্যাওয়ে দল জিততে পারেনি।
    • ম্যানচেস্টার সিটি তাদের খেলা সর্বশেষ ৭টি হোম ম্যাচেই জয়ের দেখা পেয়েছে, এবং তার প্রত্যেকটিতেই তারা কমপক্ষে ৩টি করে গোল করতে পেরেছে। সর্বশেষ দল হিসেবে পর পর ৮টি হোম ম্যাচ জিতেছিল এবং তার প্রত্যেকটিতে কমপক্ষে ৩টি করে গোল করেছিল টটেনহ্যাম হটস্পার্স। তারা সেই রেকর্ডটি গড়েছিল ১৯৬৫ সালের মার্চ থেকে সেপ্টেম্বরের মাঝামাঝি।
    • ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড প্রিমিয়ার লীগে তাদের খেলা সর্বশেষ ৪টি ম্যাচেই জয় হাসিল করতে সক্ষম হয়েছে। তবে, তার ঠিক আগের চারটি ম্যাচের প্রত্যেকটিতেই তারা পরাজিত হয়েছিল। সর্বশেষ তারা টানা ৫টি ম্যাচে জয় পেয়েছিল ওলে গানার সলসকিয়ের এর তত্ত্বাবধানে থাকাকালীন, ২০২১ সালের এপ্রিল মাসে।
    পড়ুন:  টটেনহাম বনাম ওয়েস্ট হ্যামের প্রিভিউ

     

    যেসকল খেলোয়াড়দের উপর সবার নজর থাকবে (Players to watch out for)

    আর্লিং হাল্যান্ড – ম্যানচেস্টার সিটি (Erling Haaland – Manchester City)

    ম্যানচেস্টার সিটি’র হয়ে প্রিমিয়ার লীগে সর্বশেষ দু’টি হোম ম্যাচে খেলতে নেমে আর্লিং হাল্যান্ড উভয় ম্যাচেই হ্যাট্রিক নিয়ে মাঠ ছেড়েছিলেন। তাদের সেই দুই অসহায় প্রতিপক্ষ ছিল যথাক্রমে ক্রিস্টাল প্যালেস এবং নটিংহ্যাম ফরেস্ট। প্রিমিয়ার লীগের ইতিহাসে এর আগে কখনোই কোন খেলোয়াড় পর পর তিনটি হোম ম্যাচে হ্যাট্রিক করতে পারেননি। এছাড়া, একই মৌসুমে তিনটি হোম ম্যাচে হ্যাট্রিক করার কীর্তি গড়া সর্বশেষ খেলোয়াড় হলেন ম্যান সিটি’রই সাবেক স্ট্রাইকার সার্জিও আগুয়েরো (২০১৮-১৯ মৌসুম)।

    ২২ বছর বয়সী এই যুবা তারকা ম্যানচেস্টার সিটি’র হয়ে তার খেলা সর্বশেষ ৪টি ম্যাচে সর্বমোট ৬টি গোল করেছেন, এবং এই ম্যাচটির মাধ্যমে তিনি সেই গোলের ধারাটি বজায় রাখার জন্য সর্বাত্মক চেষ্টা করবেন, সেটিই কাম্য।

     

    মার্কাস র‍্যাশফোর্ড – ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড (Marcus Rashford – Manchester United)

    এরিক তেন হাগের অধীনে এই ইংলিশ ফরোয়ার্ড যেন এক নতুন জীবন খুঁজে পেয়েছেন। এই মৌসুমে এখন পর্যন্ত তিনি ৬টি ম্যাচ খেলে ৩টি গোল করতে সক্ষম হয়েছেন। ম্যান সিটি’র বিরুদ্ধেও তিনি অতীতে বেশ কয়েকবার গোল করেছেন (যার মধ্যে জয়সূচক গোলও রয়েছে), এবং ম্যানচেস্টার সিটিকে তাদের মৌসুমের প্রথম পরাজয়ের স্বাদটি গ্রহণ করাতে হলে তাকেই ইউনাইটেডের হয়ে গোল করার দায়িত্বটি নিতে হবে।

     

    ম্যানচেস্টার সিটি বনাম ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড প্রেডিকশন (Manchester City Vs Manchester United Prediction)

    ম্যানচেস্টার সিটি তাদের প্রিমিয়ার লীগ মৌসুমে আবারও একটি উড়ন্ত সূচনা করেছে, এবং লীগের মুকুটটি নিজেদের দখলের রাখার জন্য তারা বদ্ধপরিকর এবং ফেভারিটও বটে। যদিও ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডের নব্য-প্রাপ্ত ভালো ফর্ম এবং আত্মবিশ্বাস এই ম্যাচটি প্রেডিক্ট করার ব্যাপারটিকে কঠিন করে দিয়েছে, তবুও এটি না বললেই নয় যে, দুই দলের মধ্যে বর্তমানে একমাত্র তফাৎটি গড়ে দিচ্ছেন সিটি’র নতুম স্বর্ণবালক আর্লিং হাল্যান্ড। ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডের রক্ষণভাগ এবারের মৌসুমে প্রচুর উত্থান-পতনের শিকার হয়েছে, এবং তাদের বিরুদ্ধে তাই আর্লিং হাল্যান্ড আবারও তার অসাধারণ গোলস্কোরিং ক্ষমতার আত্মপ্রকাশ ঘটানোর জন্যই মুখিয়ে থাকবেন।

    পড়ুন:  আরসি লেন্স বনাম আর্সেনাল প্রিভিউ
    Share.

    Leave A Reply