প্রেডিকশন (Prediction)

ওয়েস্ট হ্যাম ইউনাইটেড ১ – ০ ফুলহ্যাম

২.৫ গোলের নিম্নে

ওয়েস্ট হ্যাম ইউনাইটেড +১.০ (এশিয়ান হ্যান্ডিক্যাপ)

 

গুরুত্বপূর্ণ দিকসমূহ (Key notes)

  • ওলভারহ্যাম্পটন ওয়ান্ডারার্স এর বিরুদ্ধে তাদের সর্বশেষ ম্যাচটিতে জয় হাসিল করার পর ওয়েস্ট হ্যাম ইউনাইটেড এখন এবারের মৌসুমে প্রথমবারের মত পর পর দুইটি ম্যাচে জেতার জন্য মুখিয়ে আছে। সর্বশেষ তারা টানা ম্যাচ জিতেছিল গত মৌসুমে (ডিসেম্বর-জানুয়ারি)। সেটি ছিল তিন ম্যাচের একটি জয়ের ধারা। তবে, তাদের জন্য চিন্তার বিষয় হচ্ছে যে, কোন প্রমোটেড দলের সাথে খেলা তাদের সর্বশেষ ৩টি ম্যাচের মধ্যে ২টিতেই পরাজয়ের স্বাদ পেয়েছে হ্যামার্সরা (১টিতে জয়)। তার আগে কোন প্রমোটেড দলের বিপক্ষে খেলা তাদের ১৬টি ম্যাচে তারা সমান সংখ্যক বার পরাজিত হয়েছিল।
  • ফুলহ্যাম তাদের খেলা সর্বশেষ ৬টি ম্যাচের মধ্যে পর পর দুইটি ম্যাচে জেতার কীর্তি একবারও গড়তে পারেনি, বরং প্রত্যেকটি জয়ের পর তারা একটি করে ম্যাচে হেরেছে, এবং তারপরের ম্যাচে আবার জিতেছে। তবে, তাদের সর্বশেষ ম্যাচে তারা নিউক্যাসেল ইউনাইটেডের নিকট ৪-১ গোলের ব্যবধানে বিধ্বস্ত হয়। এই বিগত ছয় ম্যাচের ধারায় তারা যে সংখ্যক ম্যাচ জিতেছে (৩), সে সংখ্যক জয় তারা পেয়েছিল প্রিমিয়ার লীগে তার আগের ৩০টি ম্যাচ জুড়ে।

 

ফর্ম বিবরণী (সর্বশেষ ৫টি ম্যাচ) [Form Guide (Last 5 matches)]

ওয়েস্ট হ্যাম ইউনাইটেডঃ জয় – পরাজয় – পরাজয় – ড্র – জয়

ফুলহ্যামঃ পরাজয় – জয় – পরাজয় – জয় – পরাজয়

 

ম্যাচটি সম্পর্কিত কিছু তথ্য (Match Facts)

  • ওয়েস্ট হ্যাম ইউনাইটেড ম্যানেজার ডেভিড ময়েস তার বর্তমান ও সাবেক দলের হয়ে ফুলহ্যামের বিরুদ্ধে খেলা সর্বশেষ ১৪টি ম্যাচের মধ্যে ১৩টিতেই জয়ের স্বাদ পেয়েছেন (১টি ড্র)। ২০০২ সালের মার্চ মাসে এভারটন ম্যানেজার হিসেবে প্রিমিয়ার লীগে তার অভিষেক ম্যাচেই তিনি ফুলহ্যামকে ২-১ গোলে হারাতে সক্ষম হয়েছিলেন। কোন একটি নির্দিষ্ট প্রতিপক্ষের বিপক্ষে নিজ ভূমে ১০টির বেশি ম্যাচ খেলা ম্যানেজারদের মধ্যে শুধুমাত্র আর্সেন ওয়েঙ্গার বনাম লেস্টার সিটি (১০০%, ১১ ম্যাচে ১১টি জয়) এর নিকটই ডেভিড ময়েস বনাম ফুলহ্যামের (৯৩%) চেয়ে শ্রেয় রেকর্ড রয়েছে।
  • ফুলহ্যামের সার্বিয়ান স্ট্রাইকার আলেকজান্ডার মিত্রোভিচ এবারের মৌসুমে তার খেলা সর্বশেষ ৩টি লন্ডন ডার্বিতেই গোল করতে সক্ষম হয়েছেন (ব্রেন্টফোর্ড, আর্সেনাল, এবং টটেনহ্যাম হটস্পার্স এর বিপক্ষে)। তবে, প্রিমিয়ার লীগে তার খেলা প্রথম ১৭টি লন্ডন ডার্বিতে তিনি কেবলমাত্র ১টি গোলই করতে পেরেছিলেন।
পড়ুন:  ব্রেন্টফোর্ড বনাম সাউথ্যাম্পটন প্রিভিউ এবং প্রেডিকশন: নিজেদের অসাধারণ ফর্ম কি ধরে রাখতে পারবে বিস'রা?

 

যেসকল গুরুত্বপূর্ণ খেলোয়াড়দের উপর সবার নজর থাকবে (Key players to watch out for)

ডেক্লান রাইস – ওয়েস্ট হ্যাম ইউনাইটেড (Declan Rice – West Ham United)

এবারের মৌসুমে ওয়েস্ট হ্যাম ইউনাইটেড এর ধীরগতির সূচনার পেছনে অন্যতম বড় কারণ ছিল তাদের দুই সেন্ট্রাল মিডফিল্ডার ডেক্লান রাইস ও থমাস সুচেক এর ফর্মে না থাকাটা। তবে, বিগত কয়েক ম্যাচ ধরেই তাদের স্বভাবসুলভ যুগলবন্দী আবারও ফিরে আসছে বলেই মনে হচ্ছে। তার সাথে যুক্ত হয়েছেন ব্রাজিলিয়ান মিডফিল্ডার লুকাস প্যাকেতা। এমন শক্তিশালী মিডফিল্ডের মধ্যেও ডেক্লান রাইস এর গুরুত্বই সবচেয়ে বেশি, এবং সেজন্য তার দিকেই হ্যামার্স সমর্থকরা চেয়ে থাকবেন ভালো কিছু পাবার লক্ষ্যে।

 

আলেকজান্ডার মিত্রোভিচ – ফুলহ্যাম (Aleksandr Mitrovic – Fulham)

নতুন প্রিমিয়ার লীগ মৌসুমে দূর্দান্ত সূচনা করার পর তার খেলা সর্বশেষ তিনটি ম্যাচে মিত্রোভিচ কোনই গোল পাননি। এছাড়া, প্রিমিয়ার লীগে তার খেলা সর্বশেষ ৩টি লন্ডন ডার্বিতেও তিনি কোন গোল পাননি। তবে, তার গোলস্কোরিং ক্ষমতা নিয়ে প্রশ্ন তোলার কোনই অবকাশ নেই, এবং এই ম্যাচের মাধ্যমেই তিনি তার সাময়িক গোল খরা কাটিয়ে নিতে পারেন।

Share.

Leave A Reply