প্রেডিকশন (Prediction)

    ব্রাইটন এন্ড হোভ এলবিয়ন ১ – ২ চেলসি

    ২.৫ গোলের উর্ধ্বে

    ব্রাইটন এন্ড হোভ এলবিয়ন +১.০ (এশিয়ান হ্যান্ডিক্যাপ)

    গুরুত্বপূর্ণ দিকসমূহ (Key Notes)

    • রোবার্তো ডি জার্বি’র অধীনে খেলা ৪টি ম্যাচে যে ৪টি গোল ব্রাইটন এন্ড হোভ এলবিয়ন স্কোর করেছে, তার সবগুলোই এসেছে লিয়ান্দ্রো তোসার্দ এর পা থেকে। একজন ম্যানেজারের চাকরির প্রথম ৪টি ম্যাচে দলের সবগুলি গোলই করতে পেরেছেন এমন মাত্র তৃতীয় খেলোয়াড় হলেন তোসার্দ। এর আগে কলিন টড এর ডার্বি কাউন্টির হয়ে ফাব্রিৎসিও রাভান্নেলি এবং ড্যানিয়েল ফার্ক এর নরউইচ সিটি’র হয়ে টিমু পুক্কি এমনটি করতে পেরেছিলেন। এর আগে কোন খেলোয়াড়ই তার ম্যানেজারের অধীনে প্রথম পাঁচটি গোলই করতে পারেননি।
    • ২০১৮ ও ২০১৯ এর মাঝামাঝি ব্রাইটন এন্ড হোভ এলবিয়ন এর বিপক্ষে পর পর ৩টি ম্যাচে গোল করার পর (যার মধ্যে ৩টি অনুষ্ঠিত হয়েছিল অ্যামেক্স স্টেডিয়ামে), ব্রাইটন এন্ড হোভ এলবিয়ন এর বিপক্ষে খেলা তার সর্বশেষ ৫টি ম্যাচে কোন গোলের দেখা পাননি চেলসি’র স্ট্রাইকার পিয়ের এমেরিক অবামেয়াং।

    ফর্ম বিবরণী (সর্বশেষ ৫টি ম্যাচ) [Form Guide (Last 5 matches)]

    ব্রাইটন এন্ড হোভ এলবিয়নঃ পরাজয় – ড্র – পরাজয় – পরাজয় – ড্র

    চেলসিঃ ড্র – ড্র – জয় – জয় – জয়

    ম্যাচটি সম্পর্কিত কিছু তথ্য (Match Facts)

    • এ পর্যন্ত প্রিমিয়ার লীগে দুই দলের মধ্যকার ১০টি ম্যাচের একটিতেও জয় পায়নি ব্রাইটন এন্ড হোভ এলবিয়ন (৪টি ড্র, ৬টি পরাজয়)। তবে, দুই দলের মধ্যকার সর্বশেষ ৩টি ম্যাচই ড্র হয়েছে।
    • লীগ ফুটবলে এর আগে ১৪ বার ব্রাইটনের মুখোমুখি হয়ে একবারও হারেনি চেলসি (১০টি জয়, ৪টি ড্র)। এর চেয়ে বেশি ম্যাচে মুখোমুখি হয়ে একটি নির্দিষ্ট দল আরেকটি নির্দিষ্ট দলের বিপক্ষে সবকটিতেই জিতেছে, প্রিমিয়ার লীগের ইতিহাসে এমনটি এর আগে আর মাত্র তিনবারই হয়েছে (ম্যানচেস্টার সিটি বনাম এএফসি বোর্নমাউথ – ১৭টি ম্যাচ, কার্ডিফ সিটি বনাম হ্যালিফ্যাক্স টাউন – ১৬টি ম্যাচ, ক্রিস্টাল প্যালেস বনাম রেক্সহ্যাম – ১৬টি ম্যাচ)।
    পড়ুন:  আর্সেনাল বনাম পোর্তো রিপোর্ট

    যেসকল গুরুত্বপূর্ণ খেলোয়াড়দের উপর সবার নজর থাকবে (Key players to watch out for)

    লিয়ান্দ্রো তোসার্দ – ব্রাইটন এন্ড হোভ এলবিয়ন (Leandro Trossard – Brighton & Hove Albion)

    রোবার্তো ডি জার্বি’র অধীনে এ পর্যন্ত ব্রাইটনের করা ৪টি গোলের সবকটিই স্কোর করেছেন তাদের বেলজিয়ান তারকা লিয়ান্দ্রো তোসার্দ। বর্তমানে তিনি তাদের সেরা খেলোয়াড় এবং দলকে জয়ের ধারায় আনতে হলে সবচেয়ে বেশি প্রভাবও তাই তাকেই বিস্তার করতে হবে।

    কাই হাভার্টজ – চেলসি (Kai Havertz – Chelsea)

    গত মিডউইকে উয়েফা চ্যাম্পিয়নস লীগের গুরুত্বপূর্ণ ম্যাচে আরবি সালজবার্গ এর বিপক্ষে জয়সূচক একটি চমৎকার গোল করেন এই লিকলিকে জার্মান ফরোয়ার্ড। গোলটি তার আত্মবিশ্বাসের জন্য খুবই ভালো হবে, এবং অবশ্যই, পরবর্তী ম্যাচে ব্রাইটন এর বিপক্ষে আরো গোল করে তিনি এই ফর্মটি ধরে রাখতে চাইবেন।

    Share.
    Leave A Reply