প্রেডিকশন (Prediction)

লেস্টার সিটি ০ – ৩ ম্যানচেস্টার সিটি

২.৫ গোলের উর্ধ্বে

ম্যানচেস্টার সিটি -২.০ (এশিয়ান হ্যান্ডিক্যাপ)

গুরুত্বপূর্ণ দিকসমূহ (Key Notes)

  • এবারের মৌসুমে প্রথমবারের মত লেস্টার সিটি পর পর দু’টি ম্যাচে জয়লাভ করার গৌরব অর্জন করেছে, যেখানে মৌসুমের শুরুর দিকে এক পর্যায়ে তারা টানা ৪টি ম্যাচে পরাজিত হয়েছিল।
  • এনফিল্ডে লিভারপুলের বিপক্ষে ১-০ গোলের ব্যবধানে হারে ম্যান সিটি, যেটি কি না ছিল তাদের মৌসুমের প্রথম পরাজয়। সেই ম্যাচটির পরে অর্থাৎ সিটি’র খেলা সর্বশেষ ম্যাচে আবার তারা জয়ের ধারায় ফিরেও এসেছে। সেই ম্যাচটিতে তারা ঘরের মাঠে ব্রাইটন এন্ড হোভ এলবিয়নকে ৩-১ গোলে হারিয়েছে।

ফর্ম বিবরণী (সর্বশেষ ৫টি ম্যাচ) [Form Guide (Last 5 matches)]

লেস্টার সিটিঃ জয় – জয় – ড্র – পরাজয় – জয়

ম্যানচেস্টার সিটিঃ জয় – পরাজয় – জয় – জয় – জয়

ম্যাচটি সম্পর্কিত কিছু তথ্য (Match Facts)

  • প্রিমিয়ার লীগে ম্যানচেস্টার সিটি’র বিরুদ্ধে মোট ১১টি ম্যাচ খেলে ৯টিতেই পরাজিত হয়েছে লেস্টার সিটি (২টিতে জয়)। এর মধ্যে সর্বশেষ ৩টি ম্যাচেই তারা হেরেছে।
  • ম্যানচেস্টার সিটি লীগে লেস্টার সিটি’র বিপক্ষে খেলা তাদের সর্বশেষ তিনটি অ্যাওয়ে ম্যাচেই লেস্টার সিটিকে হারিয়েছে, এবং সেই ম্যাচগুলিতে তারা একটি গোলও হজম করেনি। তারা কিং পাওয়ার স্টেডিয়ামে সর্বশেষ হেরেছে ২০১৮ সালে, ২-১ গোলের ব্যবধানে।
  • লেস্টার কোন গোল হজম না করেই তাদের খেলা সর্বশেষ ৩টি প্রিমিয়ার লীগ ম্যাচে অপরাজিত রয়েছে। এর মধ্যে তারা সর্বশেষ ২টি ম্যাচেই জিতেছে। তারা লীগে সর্বশেষ পর পর চার ম্যাচে ক্লিন শিট রেখেছিল ২০১৯ সালে। এছাড়া, তারা সর্বশেষ টানা ৩ ম্যাচে জয়ের দেখা পেয়েছিল ২০২১ সালের জানুয়ারি মাসে।
  • ম্যানচেস্টার সিটি প্রিমিয়ার লীগে খেলা তাদের সর্বশেষ ৬টি অ্যাওয়ে ম্যাচের মধ্যে মাত্র ২টিতে জয়লাভ করতে পেরেছে (৩টি ড্র, ১টি পরাজয়)। এর মধ্যে সর্বশেষ ম্যাচটিতে তারা লিভারপুলের বিপক্ষে ১-০ গোলে হারে। সর্বশেষ সিটিজেন’রা প্রিমিয়ার লীগে টানা দুই ম্যাচে হেরেছিল ২০২১ সালের মে/আগস্ট মাসে (ব্রাইটন এন্ড হোভ এলবিয়ন এবং টটেনহ্যাম হটস্পার্স এর বিপক্ষে)।
পড়ুন:  আর্সেনাল বনাম ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড প্রিভিউ এবং প্রেডিকশনঃ লীগে মৌসুমের একমাত্র পরাজয়ের প্রতিশোধ তুলতে মরিয়া গানারস'রা

যেসকল গুরুত্বপূর্ণ খেলোয়াড়দের উপর সবার নজর থাকবে (Key players to watch out for)

আর্লিং হাল্যান্ড – ম্যানচেস্টার সিটি (Erling Haaland – Manchester City)

নরওয়েজিয়ান এই যুবা সুপারস্টার প্রিমিয়ার লীগে একটি অসাধারণ সূচনা করেছেন, এবং এমন সব পরিসংখ্যান দাঁড়া করিয়েছেন যেগুলি প্রিমিয়ার লীগের ইতিহাসে ডেব্যু মৌসুমে আর কোন খেলোয়াড়ই দাঁড়া করাতে পারেননি। এই হারে চলতে থাকলে তিনি মৌসুমশেষে প্রায় ৫০টির কাছাকাছি গোল করে বসবেন।

জেমস ম্যাডিসন – লেস্টার সিটি (James Maddison – Leicester City)

ফক্সেস’দের নাম্বার টেন জেমস ম্যাডিসন এবারের মৌসুমে নিঃসন্দেহে নিজের যোগ্যতার প্রমাণ দিয়েছেন, এবং তিনিই এ পর্যন্ত লেস্টারের সেরা খেলোয়াড়। এবং, এই ম্যাচটিতে তার গুরুত্ব লেস্টারের জন্য আরো বেশিই হবে। তবে, ম্যানচেস্টার সিটি’র মত বড় দলের সাথে দলকে জেতানোর জন্য তার দরকার আরো ভালো সার্ভিস ও ডেলিভারি।

Share.
Leave A Reply