প্রেডিকশন (Prediction)

ফ্রান্স ৩ – ০ অস্ট্রেলিয়া

ভেন্যুঃ আল জানুব স্টেডিয়াম

২০১৮ সালের রাশিয়া বিশ্বকাপের চ্যাম্পিয়ন ফ্রান্স গত দুই-এক বছরে একদমই ভালো খেলা উপহার দিতে পারেনি। কিন্তু, তবুও তাদের নিকটই রয়েছে এবারের বিশ্বকাপের সবচেয়ে শক্তিশালী দল এবং একজন অভিজ্ঞ কোচ। তাদের পূর্ণাঙ্গ স্কোয়াড যে মানের খেলোয়াড় দ্বারা পূর্ণ, তাতে একটি নয়, বরং দুইটি বিশ্বমানের একাদশ তারা মাঠে নামাতে পারবে। এছাড়া, ২০২২ কাতার বিশ্বকাপে তাদের প্রথম খেলাটি বেশ সহজ প্রতিপক্ষের বিরুদ্ধেই, তথা ম্যাচটির মধ্য দিয়ে তারা নিজেদেরকে কিছুটা ঝালাইও করে নিতে পারবে।

তবে, এশিয়ান ফুটবল কনফেডারেশন (এএফসি) এর অন্তর্ভুক্ত যতগুলি দল এবার বিশ্বকাপে খেলার সুযোগ পেয়েছে, তাদের সকলের মতই অস্ট্রেলিয়ার জন্যও এই টুর্নামেন্টটিতে অনেক কিছুই প্রমাণ করার রয়েছে। প্রথম ম্যাচেই ফ্রান্সকে হারাতে পারলে তাদের জন্য সেই কাজটি বেশ সহজ হয়ে যাবে।

ফর্ম বিবরণীঃ ফ্রান্স (Form Guide: France)

ফ্রান্স তাদের খেলা সর্বশেষ ৬টি ম্যাচের মধ্যে ৩টিতেই পরাজয় বরণ করেছে। বাকি দুই ম্যাচে ল্র মধ্যেও তারা জিততে পেরেছে কেবলমাত্র একটিতেই, তাও আবার দূর্বল অস্ট্রিয়ার বিপক্ষে। ২০১৮ সালে বিশ্বকাপ শিরোপা জেতার পথে তারা ডেনমার্ক এবং ক্রোয়েশিয়া উভয় দলকেই হারিয়েছিল, কিন্তু তাদের বিপক্ষে উয়েফা নেশনস লীগের দু’টি ম্যাচেই তারা পরাজয়ের স্বাদ পেয়েছে, যা গত কয়েক বছরে তাদের ফর্মের অধঃপতনকেই তুলে ধরে।

তবে, তাদের জন্য আশার বিষয় এই যে, তাদের গোলস্কোরাররা ধীরগতিতে হলেও আবার ফর্মে ফিরেছেন। তাদের দলের আক্রমণের কান্ডারীরা তাদের নিজ নিজ ক্লাবের হয়ে বর্তমানে বেশ ভালো ফর্মই পার করছেন। তবে, কিলিয়ান এমবাপ্পে ব্যতীত সকল পজিশনেই প্রচুর প্রতিযোগিতা থাকায় মূল একাদশ বেছে নিতে কোচ দিদিয়ের দেশম’কে খানিকটা বেগ পেতে হতে পারে।

ফর্ম বিবরণীঃ অস্ট্রেলিয়া (Form Guide: Australia)

আরেক দিকে, অস্ট্রেলিয়া তাদের খেলা সর্বশেষ ৬টি ম্যাচের মধ্যে ৩টিতেই জয়লাভ করতে পেরেছে। তবে, এই সময়কালে ফ্রান্স যে মানের প্রতিপক্ষদের নিকট হেরেছে বা ড্র করেছে, তাদের তুলনায় অস্ট্রেলিয়ার প্রতিপক্ষগুলির শক্তিমত্তা অনেকটাই কম ছিল। তবে, তারপরেও সকারুজ খ্যাত অস্ট্রলিয়া বিশ্বকাপ যাত্রা শুরুর পূর্বেই তাদের খেলা সর্বশেষ ৩টি ম্যাচে জয়লাভ করতে পেরেছে, যা সত্যিই প্রশংসার যোগ্য।

পড়ুন:  নটিংহ্যাম ফরেস্ট বনাম ম্যাঞ্চেস্টার ইউনাইটেড প্রাকদর্শন:

তাদের জন্য আরেকটি চিন্তার বিষয় হবে গোল স্কোর করা এবং এসিস্ট করা নিয়ে। এই দুই জায়গায় তাদেরকে সাম্প্রতিক সময়ে খানিকটা দুর্ভোগ পোহাতে হয়েছে। মূলত, এসব জায়গায় সমস্যা থাকার কারণেই বিশ্বকাপের জন্য কোয়ালিফাই করতে তাদেরকে যথেষ্ট বেগও পেতে হয়েছিল। এছাড়া, প্রথম ম্যাচেই বর্তমান বিশ্ব চ্যাম্পিয়নদের মুখোমুখি হওয়াতে তাদের জন্য কিছুটা বিপদই ঘনিয়ে আসছে বলতে হবে।

ম্যাচটিতে যা যা ঘটতে পারে (How the game could go)

নিঃসন্দেহে, ফ্রান্স একচ্ছত্র ফেভারিট হিসেবেই এই ম্যাচটিতে প্রবেশ করবে। যেমনটি আমরা আগেই বলেছি, অস্ট্রেলিয়া তাদের বিশ্বকাপ মিশন শুরু করার জন্য একদম মানানসই একটি প্রতিপক্ষ, কারণ বিশ্বকাপ শিরোপা ঘরে রাখার জন্য তাদের দরকার একটি সুখকর সূচনা, যা তারা অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে অর্জন করার ক্ষেত্রে বেশ আত্মবিশ্বাসী হবে। যে কারো মতেই ফ্রান্স একটি সহজ জয়ের দিকেই ধাবিত হচ্ছে, এবং এই ম্যাচটিতে যে কিলিয়ান এমবাপ্পে কমপক্ষে একটি গোল করবেন সেটিও কাতারের মরুভূমির কড়া দাবদাহের মতই স্পষ্ট।

Share.

Leave A Reply