প্রেডিকশন (Prediction)

    মরক্কো ১ – ২ ক্রোয়েশিয়া

    ভেন্যুঃ আল বাইত স্টেডিয়াম

    বিশ্বকাপ বাছাই পর্বে আফ্রিকার দ্বিতীয় সর্বোচ্চ সাফল্য অর্জনকারী দেশ মরক্কো এবার তাদের কাতার বিশ্বকাপের যাত্রা শুরু করবে এযাবতকালে ইউরোপের সবচেয়ে সফল ও ইন-ফর্ম দল এবং ২০১৮ সালের রাশিয়া বিশ্বকাপের রানার্স আপ ক্রোয়েশিয়ার বিপক্ষে ম্যাচ দিয়ে। এই ঐতিহাসিক ম্যাচটি থেকে প্রচুর বিনোদন পাবে বলেই আশা বিশ্বব্যাপী ফুটবল প্রেমীদের, কারণ উভয় দলই চাইবে টুর্নামেন্টের অন্যান্য সকল দলের কাছে সতর্কবার্তা পৌঁছে দিতে। এছাড়া, গত কয়েক বছরে ফুটবল বিশ্বে সবচেয়ে বেশি উন্নতি করা দেশগুলির মধ্যে একটি হল মরক্কো। ক্রোয়েশিয়ার বিপক্ষে ম্যাচটি হবে তাদের উন্নয়নের সবচেয়ে বড় মাপকাঠি।

    ফর্ম বিবরণীঃ মরক্কো (Form Guide: Morocco)

    এটলাস লায়নস খ্যাত মরক্কো তাদের খেলা সর্বশেষ ৬টি ম্যাচে একটি সমান্তরাল ফলাফল উপহার দিয়েছে, অর্থাৎ তার মধ্যে থেকে তারা ২টি ম্যাচে জিতেছে, ২টিতে ড্র করেছে, এবং ২টিতে হেরেছে। এর মধ্যে তাদের একটি জয় এসেছিল চিলির বিপক্ষে, এবং একটি ড্র এসেছিল প্যারাগুয়ে’র বিপক্ষে।

    তবে, তাদের বিশ্বকাপ প্রস্তুতির বেশির ভাগ ম্যাচেই তাদেরকে গোল করতে বেশ বেগ পেতে হয়েছে। সেখান থেকে এটিই বোঝা যায় যে, বিশ্বকাপ শুরুর আগে মরক্কো কোচ ওয়ালিদ রেগ্রাগুইকে (যাকে গত সেপ্টেম্বর মাসে দলটির দায়িত্ব দেওয়া হয়) তার দলের গোলস্কোরিং এর দিকটিতেই সবচেয়ে বেশি নজর দিতে হবে, নতুবা বিশ্বকাপে গ্রুপ ‘এফ’ এর প্রথম ম্যাচে ক্রোয়েশিয়ার বিপক্ষে তাদেরকে হতাশই হতে হবে। তবে, এটি মানতেই হবে যে, তাদের নিকট যথেষ্ট মানসম্পন্ন ও প্রতিভাবান এমন বেশ কিছু খেলোয়াড় আছে যারা কি না এই গ্রুপ থেকে মরক্কোকে একটি ডার্ক হর্সে পরিণত করতে পারে।

    ফর্ম বিবরণীঃ ক্রোয়েশিয়া (Form Guide: Croatia)

    পর পর চারটি ম্যাচে জয় পেলে যেকোন দলের জন্যই আত্মবিশ্বাস আকাশ ছুঁবে, এটিই স্বাভাবিক। এমনটিই হয়েছে ক্রোয়েশিয়ার সাথে। তারা এবারের বিশ্বকাপে মরক্কোর বিপক্ষে তাদের প্রথম ম্যাচটির আগে তাই আত্মবিশ্বাসের শিখরে অবস্থান করছে।

    পড়ুন:  এস্টন ভিলা বনাম ব্রেন্টফোর্ড প্রিভিউ এবং প্রেডিকশনঃ স্টিভেন জেরার্ডের জন্য বাঁচা-মরার লড়াই?

    তাদের খেলা সর্বশেষ তিনটি ম্যাচে যথাক্রমে অস্ট্রিয়া, ডেননার্ক এবং ফ্রান্সের মত শক্তিশালী দলগুলির বিপক্ষে টানা জয় এবং সেই ম্যাচগুলিতে সম্মিলিতভাবে তাদের ৭টি গোল স্কোর করার ব্যাপারটি এটিই প্রমাণ করে যে, ২০১৮ সালে বিশ্বকাপের রানার্স আপ হওয়ার বেলায় তারা যে ফর্মটি প্রদর্শন করেছিল, সেটির পুনরাবৃত্তি ঘটানোর ক্ষমতা তাদের রয়েছে। মধ্য ইউরোপের এই দেশটির জন্য হালকা চিন্তার বিষয় হল তাদের ডিফেন্স, যেটিকে সম্প্রতি (মাঝে মাঝে) কিছুটা নড়বড়ে মনে হয়েছে।

    ম্যাচটিতে যা যা ঘটতে পারে (How the game could go)

    যেহেতু মরক্কোর বিরুদ্ধে এর আগে খুব বেশি ম্যাচ ক্রোয়েশিয়া খেলেনি, সেহেতু এই ম্যাচটি থেকে প্রচুর বিনোদন ও উত্তেজনা আশা করা যাচ্ছে। তবে, এই দুই দলের মধ্যে হালকা ইতিহাস কিন্তু রয়েছে। ১৯৯৬ সালে খেলা তাদের মধ্যকার একমাত্র ম্যাচটিতে দু’দলকে আলাদা করার জন্য পেনাল্টি শুট আউটের প্রয়োজন হয়েছিল, যেটির মাধ্যমে জয়লাভ করেছিল মরক্কো। তারপরও, এই ম্যাচটিতে যদি কোন দল জিতে, তাহলে বর্তমান প্রেক্ষাপটে সেটি ক্রোয়েশিয়া হওয়ার সম্ভাবনাই অনেকটা বেশি।

    Share.

    Leave A Reply