প্রেডিকশন (Prediction)

পর্তুগাল ২ – ০ ঘানা

ভেন্যুঃ স্টেডিয়াম ৯৭৪

সার্জিও রামোস এবং লিওনেল মেসির পাশাপাশি ক্রিশ্চিয়ানো রোনাল্ডোই এমন একমাত্র খেলোয়াড় যিনি ২০০৬ সালের ফিফা বিশ্বকাপ থেকে শুরু করে এবারের ২০২২ বিশ্বকাপ পর্যন্ত মোট ৫টি বিশ্বকাপ খেলতে চলেছেন। এতে হয়তো তার দলের ক্রীড়াকৌশলে তেমন কোন প্রভাবই পড়বে না, তবে দলটির প্রত্যেকটি খেলোয়াড়ের মাথায়ই এই ব্যাপারটি নিশ্চয় থাকবে যে, তাদের দেশের সর্বকালের শ্রেষ্ঠ ফুটবলারের শেষ বিশ্বকাপ এটি, এবং যেভাবেই হোক তাকে শিরোপাটি জেতানোর একটি শেষ চেষ্টা চালাতেই হবে। ২০২২-২৩ মৌসুম শুরুর পর থেকেই অবশ্য রোনাল্ডো বেশ বাজে ফর্মে রয়েছেন, এবং একের পর এক গোলের সুযোগও মিস করেই যাচ্ছেন। তাই, বিশ্বকাপে পর্তুগালের প্রথম ম্যাচটি ঘানা’র বিপক্ষে হওয়ায় এই কিংবদন্তি ফুটবলার ফর্মে ফেরার আরেকটি সুবর্ণ সুযোগ পাবেন।

ফর্ম বিবরণীঃ পর্তুগাল (Form Guide: Portugal)

পর্তুগাল তাদের খেলা সর্বশেষ ৬টু ম্যাচের মধ্যে ৩টিতেই জয়লাভ করেছে, তাও আবার বড় বড় ব্যবধানে। সেই তিন মুয়াচে তাদের সম্মিলিত স্কোরলাইন হল ১০-০, যা তাদের যেকোন ম্যাচকে ডমিনেট করার ক্ষমতাটিকেই তুলে ধরে।

তবে, সেই ৬টি ম্যাচের মধ্যে যে তিনটিতে তারা বিশ্বকাপে খেলতে চলেছে এমন দলের সম্মুখীন হয়েছে, তার মধ্যে একটিতে ড্র করতে পারলেও বাকি দুইটিতে তারা পরাজিত হয়েছে (যদিও ক্ষীণ ব্যবধানে)। তবে, বিশ্বকাপে প্রবেশের আগে তারা আত্মবিশ্বাসীই হবে, কারণ তাদের নিকট রয়েছে ফিনিশিং এ পাকাপোক্ত স্ট্রাইকার, গোল তৈরি করার জন্য বুদ্ধিদীপ্ত মিডফিল্ডার ও উইংগার, এবং দূর থেকে শট মেরে গোল করার মতও বেশ কিছু খেলোয়াড়। 

ফর্ম বিবরণীঃ ঘানা (Form Guide: Ghana)

ঘানা এবারের বিশ্বকাপে অংশগ্রহণকারী আফ্রিকা থেকে আগত সবচেয়ে দূর্বল দল, এবং তাদের খেলা সর্বশেষ ৬টি ম্যাচে তাদের শোচনীয় রেকর্ডই সেটির চোখ ধাঁধাঁনো প্রমাণ। 

আগামী ২৪ই নভেম্বর পর্তুগালের সম্মুখীন হওয়ার পূর্বে তাদের খেলা সর্বশেষ সেই ৬টি ম্যাচের মধ্যে মোটামুটি দূর্বল সব প্রতিপক্ষদের বিপক্ষে মাত্র ১টি জয়, ৩টি ড্র, এবং ২টি পরাজয় মোটেও তাদেরকে আত্মবিশ্বাসী করে তুলবে না। তবে, তাদের দলে বেশ কিছু নতুন যুবা খেলোয়াড়কে অন্তর্ভুক্ত করা হয়েছে। তারা যদি নিজেদের প্রতিভার সাথে সুবিচার করতে পারে, তবেই শুধু ঘানা তাদের ২০১০ বিশ্বকাপের ফর্মের পুনরাবৃত্তি ঘটাতে পারবে।

পড়ুন:  এভারটন বনাম ব্রেন্টফোর্ড: মৌমাছিরা টফির ক্ষতগুলিতে আরও লবণ ঘষে

ম্যাচটিতে যা যা ঘটতে পারে (How the game could go)

পর্তুগাল এই ম্যাচটিতে একচ্ছত্রভাবে ফেভারিটস, এবং এমন কোন ক্ষেত্রবিশেষ সম্পর্কে ভাবাই বড় কঠিন, যেখানে পর্তুগাল এই ম্যাচটি না জিতে থাকতে পারে। কাগজে কলমে এবং মাঠের খেলায়, উভয় ক্ষেত্রেই তাদের শক্তিমত্তা তাদের প্রতিপক্ষ ঘানার থেকে অনেক বেশি। তারা একটি বড়সড় জয় দিয়েই নিজেদের বিশ্বকাপ মিশন শুরু করতে চাইবে, যাতে করে নক আউট রাউন্ডগুলিতে যাওয়ার আগেই তারা তাদের সেরা ফর্মে চলে আসতে পারে।

Share.
Leave A Reply