প্রেডিকশন (Prediction)

ব্রাজিল ২ – ১ সার্বিয়া

ভেন্যুঃ লুসেইল আইকনিক স্টেডিয়াম

জুন ২০১৭ এর পর থেকে প্রথমবারের মত ফিফা বিশ্ব র‍্যাংকিং এর চূড়ায় উঠেছে পাঁচ বারের বিশ্ব চ্যাম্পিয়ন সেলেসাও খ্যাত ব্রাজিল। ফলে ফিফা বিশ্বকাপের ২২তম আসরে নিজেদের ৬ষ্ঠ বিশ্বকাপ শিরোপা জয়ের জন্য তারা বেশ আত্মবিশ্বাসীই থাকবে। তবে, সে যাত্রায় তাদের প্রথম প্রতিপক্ষ সার্বিয়া বেশ ভালো একটি দল গঠন করেছে, যেটিকে হারানো অনেকের জন্যই বেশ কঠিন প্রমাণিত হয়েছে। তবে, সার্বিয়ার বিপক্ষে জয়লাভ করতে পারলে ব্রাজিল প্রমাণ করবে যে, তারা আসলেই ফিফা র‍্যাংকিংয়ের শিখরে থাকার যোগ্য, এবং বিশ্বকাপের অন্যান্য দলের কাছেও সেই সতর্কবার্তা পৌঁছে যাবে সাথে সাথেই। কাতার বিশ্বকাপের প্রথম ম্যাচডে’তে যতগুলি ফিক্সচার রয়েছে, তার মধ্যে অনেকের মতে এটিই সবচেয়ে শ্বাসরুদ্ধকর ফিক্সচার, কারণ উভয় দলই সাম্প্রতিক সময়ে অতি দূর্দান্ত ফর্ম ও ক্রীড়ানৈপূন্য প্রদর্শন করেচ আসছে।

ফর্ম বিবরণীঃ ব্রাজিল (Form Guide: Brazil)

সাম্বা বয়েজ খ্যাত ব্রাজিল দল এবারের বিশ্বকাপে অত্যন্ত আত্মবিশ্বাসী হয়েই প্রবেশ করবে, কেননা বিশ্বকাপের আগে তাদের খেলা সর্বশেষ ৬টি প্রস্তুতি ম্যাচের মধ্যে সবকটিতেই জয়লাভ করেছে তারা। তারা বর্তমানে বিশ্ব ফুটবলের সবচেয়ে ইন-ফর্ম দল, এবং নিঃসন্দেহে ফিফা র‍্যাংকিংয়ের শীর্ষে থাকার যোগ্য দলও তারাই।

তাদের সেই সর্বশেষ ৬টি জয়ের মধ্যে বলিভিয়া এবং চিলি ব্যতীত বাকি ৪টি জয়ই এসেছে বিশ্বকাপে অংশগ্রহণ করতে চলেছে এমন দলের বিপক্ষে। তিতে’র শিষ্যদের মধ্যে প্রায় সকলেই রয়েছেন রেড-হট ফর্মে, এবং ফলটিতে কোন প্রকার দূর্বল স্থান খুঁজে পাওয়া বেশ কঠিন। দলের প্রত্যেকটি পজিশনই প্রতিভায় টইটম্বুর, এবং প্রত্যেক খেলোয়াড়ই হেক্সা জয়ের জন্য ক্ষুধার্ত।

ফর্ম বিবরণীঃ সার্বিয়া (Form Guide: Serbia)

সার্বিয়া তাদের খেলা সর্বশেষ ৬টি ম্যাচে প্রত্যাশার দ্বিগুণ ক্রীড়ানৈপূণ্য প্রদর্শন করেছে, এবং দেখিয়ে দিয়েছে যে তারা এবারের বিশ্বকাপে কতটা ভালো করার ক্ষমতা রাখে। সেই ৬ ম্যাচের মধ্যে ৪টি জয়, ১টি ড্র এবং ১টি পরাজয় তাদেরকে দিবে অগাধ আত্মবিশ্বাস এবং সাহস, যা বিশ্বের সবচেয়ে শক্তিশালী দেশগুলির বিপক্ষে তাদেরকে অনেক সাহায্য করবে।

পড়ুন:  বর্মুথ বনাম টটেনহাম: স্পার্স ইউনাইটেদের দিকে চমৎকার হোম জয়ের উপর গঠন করতে চায়

তাদের প্রস্তুতিমূলক সেসব ম্যাচের গুণমানকেও প্রশ্নবিদ্ধ করার কোনই উপায় নেই, কারণ সেই ৬টি ম্যাচের প্রত্যেকটিই ছিল উয়েফা নেশনস লীগের ম্যাচ, যেখানে সব দলই জেতার জন্য বা অন্তত না হারার লক্ষ্য নিয়েই খেলে। বিশ্বকাপে সেই ফর্মটি ধরে রাখতে পারলে আমাদের ধারণা গ্রুপ পর্যায়ের বাঁধা বেশ সহজেই পার করে ফেলতে পারবে আলেকজান্ডার মিত্রোভিচ এর দলটি।

ম্যাচটিতে যা যা ঘটতে পারে (How the game could go)

যেখানে এবারের বিশ্বকাপ শিরোপা জেতার জন্য সবচেয়ে ফেভারিট দল হল ব্রাজিল, সেখানে এই ম্যাচটি জেতার জন্যও তারাই ফেভারিট হবে সেটিই স্বাভাবিক। ইতিহাসও তাদের পক্ষেই রায় দিচ্ছে, কারণ এই দুই দলের মধ্যকার অতীতের ম্যাচগুলির মধ্যে বেশি জয়ের সংখ্যা ব্রাজিলের অনুকূলেই রয়েছে। তবে যাই হোক, দুইটি শক্তিশালী দলের মধ্যকার এই ম্যাচটি বেশ জমজমাট এবং শ্বাসরুদ্ধকর হতে চলেছে, যদিও দিনশেষে ব্রাজিলই জয়যুক্ত হবে বলে আমাদের ধারণা

Share.
Leave A Reply