বিশ্বকাপের গ্রুপ পর্যায়ের সমাপ্তির সাথে সাথে বিশ্বকাপের সোনালী শিরোপাটি জয়ের লক্ষ্যে নক আউট ম্যাচগুলি খেলতে শুরু করবে বিভিন্ন দল। ডিসেম্বরের শুরু থেকেই কাতার বিশ্বকাপের সেই রাউন্ড অব ১৬ এর খেলা শুরু হতে চলেছে।

গত বিশ্বকাপে ফ্রান্স চ্যাম্পিয়ন হওয়ায় দেখা যাচ্ছে যে, গত চারটি বিশ্বকাপই জিতে নিয়েছে ইউরোপের কোন দল। তবে, এশিয়ার মাটিতে খেলা সর্বশেষ বিশ্বকাপটি (২০০২, কোরিয়া/জাপান) অবশ্য জিতেছিল ব্রাজিল। তাই এবারও টুর্নামেন্টটি জেতার জন্য মরিয়া হয়ে থাকবে দক্ষিণ আমেরিকার দুই পরাশক্তি ব্রাজিল ও আর্জেন্টিনা।

যদিও ডিফেন্ডিং চ্যাম্পিয়নরা সাম্প্রতিক সময়ে গ্রুপ পর্যায়ে খুব একটা ভালো ফলাফল অর্জন করতে পারেনি, তবুও কাগজে কলমে কাতার বিশ্বকাপের গ্রুপ পর্যায় থেকে কোন কোন দল উত্তীর্ণ হতে পারে তা আমরা আগেই হিসাব করে ফেলেছি।

তাহলে এবারের বিশ্বকাপের নক আউট ম্যাচগুলিতে কি হতে পারে? কে কে উঠতে পারে পরের রাউন্ডে? কেই বা খেলবে বিশ্বকাপের ফাইনালে? আমরা এখন দেখব কি হতে পারে সেসকল ম্যাচ এর ফলাফল। চলুন, শুরু করা যাক!

রাউন্ড অব ১৬ (Round of 16)

নেদারল্যান্ডস বনাম যুক্তরাষ্ট্র (Netherlands Vs USA)

যদিও ফুটবলে যেকোন কিছুই ঘটে যেতে পারে, তবুও শুধুমাত্র ফুটবলীয় ইতিহাসের ভিত্তিতে এই ম্যাচটি হতে চলেছে একটি অত্যন্ত প্রেডিক্টেবল একটি ম্যাচ, কারণ একদিকে রয়েছে ফুটবলীয় ইতিহাসে ঠাসা একটি কিংবদন্তি দল, আর অন্য দিকে রয়েছে এমন একটি দেশ যেখানে ফুটবল কেবলমাত্র বিকশিত হচ্ছে।

তিন বারের বিশ্বকাপ ফাইনালিস্ট নেদারল্যান্ডস নিশ্চয় চাইবে তাদের অসাধারণ ইতিহাসকে কাজে লাগিয়ে আবারো ভালো কিছু অর্জন করতে। অন্যদিকে, অনভিজ্ঞ যুক্তরাষ্ট্র চাইবে নতুন করে ইতিহাস গড়তে, কারণ এর আগে কখনোই তারা গ্রুপ পর্যায় পেরিয়ে বিশ্বকাপের নক আউট পর্বে পৌঁছাতে পারেনি।

নেদারল্যান্ডসকেই আমরা এই ম্যাচে এগিয়ে রাখব, কেননা তাদের নিকট রয়েছে অভিজ্ঞ এবং ভরসাবান বেশ কিছু তারকা খেলোয়াড়, যেমন ভার্জিল ভ্যান ডাইক, মেম্ফিস ডেপায়, এবং ফ্রেঙ্কি ডি ইয়ং, যাদের উপর ভর করে তারা যুক্তরাষ্ট্রকে সহজেই হার মানাতে পারবে।

আর্জেন্টিনা বনাম ডেনমার্ক (Argentina Vs Denmark)

সবকিছু ঠিক থাকলে আগামী ৩রা ডিসেম্বর আল রাইয়ানে রাউন্ড অব ১৬ এর খেলায় ড্যানিশ ডাইনামাইটদের মুখোমুখি হবে আলবেসিলেস্তে খ্যাত আর্জেন্টিনা।

আর্জেন্টিনা এবারের বিশ্বকাপ শিরোপা জেতার জন্য অন্যতম ফেভারিট একটি দল, তাই ক্যাস্পার হিউলম্যান্ড এর শক্তিশালী ড্যানিশ দলের বিপক্ষে তারা জয়ী হভে বলেই আশা করা যাচ্ছে।

গত ইউরোপীয় প্রতিযোগিতায় সেমি ফাইনাল খেলার পর এবং বিশ্বকাপ বাছাইয়ে প্রায় পারফেক্ট রেকর্ড ধারণ করার পর ডেনমার্কও মোটেই সহজে ছেড়ে দিবে না আর্জেন্টিনাকে। তবে, দক্ষিণ আমেরিকার পরাশক্তিদের শক্তি ও সামর্থ্যের কাছে তাদের সেই রেকর্ড একরকম ফিকেই পড়ে যায়।

ফ্রান্স বনাম মেক্সিকো (France Vs Mexico)

প্রত্যাশা মোতাবেক গ্রুপ ডি চ্যাম্পিয়ন হিসেবে ফ্রান্স রাউন্ড অব ১৬তে উত্তীর্ণ হলে তাদের জন্য হয়তো অপেক্ষা করবে গ্রুপ সি এর রানার্স আপ দল মেক্সিকো, যারা তাদের গ্রুপে এর্জেন্টিনার পেছনে দ্বিতীয় স্থান নিয়ে রাউন্ড অব ১৬তে আসবে বলে ধারণা করা যাচ্ছে।

লা ব্লুস খ্যাত ফ্রান্সের স্মৃতিতে নিশ্চয় স্বি ম্যাচটি এখনো উজ্জ্বল হয়েই আছে, যেখানে ২০১০ বিশ্বকাপে মেক্সিকোর কাছে ২-০ গোলে হেরে গ্রুপ পর্যায় থেকেই বিদায় নিতে হয়েছিল তাদেরকে। তবে, এবার তারা প্রতিশোধ নেওয়ার সুযোগটি পেতে চলেছে, এবং সেটির সদ্ব্যবহার তারা করবে বলেই মনে করা হচ্ছে।

ইংল্যান্ড বনাম সেনেগাল (England Vs Senegal)

টুর্নামেন্ট ফুটবলের জন্য ইংল্যান্ড দলটি বেশ মানানসই এবং পারদর্শী, এবং গ্রুপ বি থেকে চ্যাম্পিয়ন হয়ে উত্তীর্ণ হতে পারলে কাতারে রাউন্ড অব ১৬তে তাদের জন্য অপেক্ষা করবে আফ্রিকান চ্যাম্পিয়নস সেনেগাল, যাদেরকে হারাতে পারলে আরো একটি আন্তর্জাতিক টুর্নামেন্টে বহুদূর যাওয়ার স্বপ্ন দেখতে পারবে ইংলিশরা।

এবারের আফ্রিকান কাপ অব নেশনস জয়ী তেরাংগা লায়নস খ্যাত সেনেগাল বেশ ভালো ফর্ম পার করছে, এবং ২০০২ বিশ্বকাপের পর থেকে প্রথমবারের মত এবার তারা বিশ্বকাপের কোয়ার্টার ফাইনাল খেলার স্বপ্ন দেখছে। তবে, তারা সম্মুখীন হতে চলেছে একটি ধারালো ইংল্যান্ড দলের, যারা কি না খুব ভালো করেই জানে এমন টাইট গেইম কিভাবে জিতে নিতে হয়।

পড়ুন:  প্রিমিয়ার লীগ ২০২২-২৩ঃ সদ্য প্রমোটেড বোর্নমাউথ, ফুলহ্যাম এবং নটিংহ্যাম ফরেস্টের দিকে প্রথম নজর

যেহেতু সেনেগালের নিকট বিশ্ব ফুটবলের সবচেয়ে নামীদামী কিছু নাম রয়েছে, সেহেতু এই ম্যাচটি বেশ প্রতিযোগিতামূলক হতে পারে। তবে, দিনশেষে এই ম্যাচটিতে ইংল্যান্ডকে এগিয়ে না রেখে উপায় নেই, কারণ তাদের বড় ম্যাচ খেলার অভিজ্ঞতা অনেক বেশি।

স্পেন বনাম ক্রোয়েশিয়া (Spain Vs Croatia)

রাউন্ড অব ১৬ এর এই সম্ভাব্য অল-ইউরোপিয়ান ম্যাচটি নিশ্চয় সকলেরই নজর কাড়বে, কেননা একদিকে রয়েছে সাবেক বিশ্বকাপ চ্যাম্পিয়ন স্পেন, আর অন্যদিকে গত বারের বিশ্বকাপ রানার্স আপ ক্রোয়েশিয়া।

এই দুই দল সর্বশেষ একে অপরের মুখোমুখি হয়েছিল গত বছরের ইউরোপীয় প্রতিযোগিতার রাউন্ড অব ১৬তে, যেখানে অতিরিক্ত সময়ের খেলা শেষে ৫-৩ গোলে জয়ী হয়েছিল স্পেন। এবারও একটি হাই স্কোরিং ম্যাচই আমরা আশা করতে পারি।

আইবেরিয়ান দল স্পেন অবশ্য আত্মবিশ্বাসী হবে সেই ফলাফলটির পুনরাবৃত্তি ঘটানোর ক্ষেত্রে, কারণ অনেকের মতেই তারা বিশ্বকাপের সেমি ফাইনাল খেলার উপযোগী একটি দল।

তবে, যেহেতু ক্রোয়েশিয়া অবশ্যই কোন হেলাফেলা করার মত প্রতিপক্ষ নয়, সেহেতু নিরপেক্ষ দর্শকদের জন্য এটি একটি আদর্শ মুয়াচ হতে চলেছে বলেই আমরা মনে করি।

ব্রাজিল বনাম উরুগুয়ে (Brazil Vs Uruguay)

উরুগুয়ে এবার তাদের টানা চতুর্থ বিশ্বকাপ রাউন্ড অব ১৬ ম্যাচে খেলার জন্য প্রস্তুত, তবে সেখানে তাদের সম্ভাব্য প্রতিপক্ষ হতে চলেছে গ্রুপ জি জয় করে আসা এবং ৫ বারের বিশ্বকাপ বিজয়ী দল ব্রাজিল, যারা তাদের হেক্সা জেতার জন্য এবার মরিয়া।

এই দুই দলের মধ্যে আগে থেকেই অনেক প্রতিদ্বন্দ্বিতা বিদ্যমান, তবে লা সেলেস্তে খ্যাত উরুগুয়ের জন্য তাদের দক্ষিণ আমেরিকীয় প্রতিপক্ষরা কিছুটা বেশিই শক্তিশালী প্রমাণিত হবে বলে ধারণা করা যাচ্ছে। বিশ্বকাপ বাছাই পর্বে দুইবার উরুগুয়েকে হারিয়ে তিতে’র শিষ্যরা এই ফিক্সচারটিতে প্রচুর আত্মবিশ্বাসের সাথেই প্রবেশ করবে।

বেলজিয়াম বনাম জার্মানি (Belgium Vs Germany)

বেলজিয়াম যদি তাদের গ্রুপটি থেকে চ্যাম্পিয়ন হয়ে রাইন্ড অব ১৬তে প্রবেশ করতে পারে, তাহলে সমূহ সম্ভাবনা রয়েছে যে সেখানে তারা জারত্মানর সম্মুখীন হবে। তেমনটি জলে, এটি হতে যাচ্ছে একটি অল-ইউরোপিয়ান মাস্টারক্লাস। নিজেদের গ্রুপে স্পেনকে টপকিয়ে গ্রুপ চ্যাম্পিয়ন না হতে পারলেই জার্মানিকে এই পরীক্ষাটির সম্মুখীন হতে হবে। তেমনটি হলে তাদেরকে মুখোমুখি হতে হবে এমন এক বেলজিয়াম দলের, যাদের গোল্ডেন জেনারেশন এখন সমাপ্তির দ্বারপ্রান্তে।

২০১৮ বিশ্বকাপে গ্রুপ পর্যায় থেকে এবং ২০২০ ইউরো চ্যাম্পিয়নশিপে রাউন্ড অব ১৬ থেকে বিদায় নেওয়ার পর চার বারের বিশ্বকাপ জয়ী জার্মানি এখন নিজেদের দলটিকে বেশ গুছিয়ে নিয়েছে। রেড ডেভিলস খ্যাত বেলজিয়ামের বেশির ভাগ তারকা খেলোয়াড়ই ফিটনেস নিয়ে ভুগছেন, অথবা নিজেদের সেরা সময়টি পার করে এসেছেন। তাই, যুবা জার্মান দলটিকেই আমরা এই ম্যাচে এগিয়ে রাখতে চাই, কারণ নিজেদের শক্তি ও সামর্থ্যের একটি বিশাল প্রমাণ তারা এই ম্যাচের মধ্য দিয়ে দিতে চাইবে।

পর্তুগাল বনাম সুইজারল্যান্ড (Portugal Vs Switzerland)

পর্তুগাল এবং সুইজারল্যান্ড তাদের নবনির্মিত রাইভালরিকে আরেক ধাপ এগিয়ে নেওয়ার সুযোগ পেতে পারে এবারের কাতার বিশ্বকাপের রাউন্ড অব ১৬তে। এর আগে এ বছরেই উয়েফা নেশনস লীগে দুইটি অসাধারণ ম্যাচ উপহার দিয়েছে এই দু’টি দল।

যদিও দু’দলের মধ্যকার সর্বশেষ ম্যাচটিতে গত জুন মাসে ১-০ গোলে জয়ী হয় সুইস’রা, তবে তাদের মধ্যকার সর্বশেষ ৫টি ম্যাচের মধ্যে ৩টিতেই জয়লাভ করে পর্তুগিজরা। ফার্নান্দো সান্তোস এর দলের অধিকতর শ্রেয় গুণমান এবং শক্তি সামর্থ্যই তাদেরকে এই ম্যাচটিতে ফেভারিট করে তোলে। তাই, ২০০৬ সালের পর প্রথমবারের মত পর্তুগালই কোয়ার্টার ফাইনালে উত্তীর্ণ হবে বলে আমরা মনে করছি।

পড়ুন:  চেলসি বনাম ওয়েস্ট হ্যাম ইউনাইটেড প্রিভিউ এবং প্রেডিকশন - ০৩/০৯/২০২২

কোয়ার্টার ফাইনাল প্রেডিকশনঃ কোন কোন দল বিশ্বকাপের এই পর্যায়ে উত্তীর্ণ হবে? (Quarter Final Predictions: Who qualified for the World Cup 2022 so far?)

স্পেন বনাম ব্রাজিল (Spain Vs Brazil)

এবারের কাতার বিশ্বকাপ ২০২২ এর শেষ আটের প্রথম খেলাটি হতে পারে স্পেন এবং ব্রাজিলের মধ্যকার একটি শ্বাসরুদ্ধকর ক্ল্যাশ।

স্পেনের বিপক্ষে চার বারের বিশ্ব চ্যাম্পিয়ন ব্রাজিলের রেকর্ড খুবই সন্তোষজনক, এবং আল রাইয়ান শহরের এডুকেশন সিটি স্টেডিয়ামে অনুষ্ঠিতব্য এই সম্ভাব্য ম্যাচটিতেও তারাই হট ফেভারিট।

ইতিহা বলছে যে, সর্বশেষ ৫টি বিশ্বকাপের মধ্যে মাত্র ২টিতে কোয়ার্টার ফাইনাল খেলতে পেরেছে স্পেন, যেখানে ব্রাজিল বিশ্বকাপে নিয়মিতই এই পর্যায় পর্যন্ত পৌঁছে থাকে। এবার সাম্বা ফুটবলের জনকরা চাইবে সেমি ফাইনাল পর্যন্ত পৌঁছাতে এবং তারপর শিরোপার জন্য শেষ চেষ্টা চালাতে।

নেদারল্যান্ডস বনাম আর্জেন্টিনা (Netherlands Vs Argentina)

এই দুই দলের মধ্যে প্রচুর ইতিহাস বিদ্যমান, এবং সব ঠিকঠাক থাকলে এবার বিশ্বকাপে ৬ষ্ঠ বারের মত মুখোমুখি হতে চলেছে নেদারল্যান্ডস ও আর্জেন্টিনা।

আর্জেন্টিনার মতই অরানিয়ে খ্যাত নেদারল্যান্ডসও রয়েছে একটি অসাধারণ অপরাজিত ধারায়। তবে, ২০২১ কোপা আমেরিকা প্রতিযোগিতার বিজয়ী আর্জেন্টিনার সাম্প্রতিক ফর্ম অধিকতর উত্তম, সে ব্যাপারে কোনই সন্দেহ নেই, এবং তারা বিশ্বকাপের শিরোপার জন্য ফেভারিট হওয়ারই যোগ্য বটে।

এই দুই দল এর আগে বিশ্বকাপের নক আউট রাউন্ডে তিনটি ম্যাচ খেলেছে, যার মধ্যে মাত্র একটিতে জিতেছে নেদারল্যান্ডস। তাদের শেষ মোলাকাতে ২০১৪ সালের বিশ্বকাপ সেমি ফাইনালে পেনাল্টি শুট আউটে জিতেছিল আর্জেন্টিনা। এবারও একই রকম ফলাফল আসার সম্ভাবনাই বেশি।

জার্মানি বনাম পর্তুগাল (Germany Vs Portugal)

যেখানে ২০০২ সালের পর থেকে নিজেদের ৬ষ্ঠ বিশ্বকাপে ৫ম বারের মত জার্মানি সেমি ফাইনালে উঠতে চাইবে, সেখানে পর্তুগাল এবার চাইবে ২০০৬ সালের পর থেকে প্রথমবারের মত বিশ্বকাপের সেমি ফাইনালে উঠতে।

পর্তুগাল এর বিপক্ষে বহু বছর ধরেই অসাধারণ রেকর্ড ধারণ করে রেখেছে জার্মানি। দুই দলের মধ্যকার সর্বশেষ ৫টি ম্যাচই জিতেছে জার্মানরা।

২০১৪ সালের বিশ্বকাপের প্রথম ম্যাচে গ্রুপ পর্যায়ের খেলায় পর্তুগালকে ৪-০ গোলে হারিয়ে সবাইকে চমকিয়ে দিয়েছিল জার্মানি। সেবার তারা বিশ্বকাপ শিরোপাটিও ঘরে তুলেছিল। এক্ষেত্রেও তাই আমরা টেকনিকালি শ্রেয় জার্মানদেরকেই এগিয়ে রাখছি।

ইংল্যান্ড বনাম ফ্রান্স (England Vs France)

ফ্রান্স চাইবে তাদের শিরোপা পুনরুদ্ধারের লড়াইয়ে একটি যোগ্য প্রতিপক্ষকে হারিয়ে বিশ্বকাপের সেমি ফাইনালে উঠতে। অন্য দিকে, এটি হবে ইংল্যান্ডের টানা দ্বিতীয় বিশ্বকাপ কোয়ার্টার ফাইনাল, এবং তারা চাইবে টুর্নামেন্টটির আরো দূর পর্যন্ত গিয়ে সবাইকে আশ্চর্যান্বিত করে দিতে। বিশ্বকাপ জেতার স্বপ্নও রয়েছে তাদের বুকে।

তবে, তেমনটি করতে হলে থ্রি লায়নস’দেরকে হারাতে হবে দুই বারের বিশ্ব চ্যাম্পিয়ন ফ্রান্সকে, যা আরব বিশ্বে অনুষ্ঠিত প্রথম বিশ্বকাপে ইংলিশদের যোগ্যতারই প্রমাণ হবে।

তবে, একটি পূর্ণ শক্তিশালী ফ্রান্স আক্রমণভাগ এবারের ইংল্যান্ড ডিফেন্সকে সহজেই উড়িয়ে গুড়িয়ে দিতে পারবে বলেই মনে করেন অসংখ্য ফুটবল বিশারদ। এবারের বিশ্বকাপের শেষ আটে তেমন কিছুই হবে বলে আমরাও মনে করি।

সেমি ফাইনাল প্রেডিকশন (Semi Final Prediction)

আর্জেন্টিনা বনাম ব্রাজিল (Argentina Vs Brazil)

যেকোন জেনারেশন এর জন্য একটি শ্বাসরুদ্ধকর ম্যাচ, একটি দূর্দান্ত উৎসব, দক্ষিণ আমেরিকার সুপার ক্লাসিকো খ্যাত ম্যাচ — ব্রাজিল বনাম আর্জেন্টিনা। হ্যাঁ, এবারের বিশ্বকাপের শেষ চারে এমনটি ঘটার সম্ভাবনা অনেক বেশি। দক্ষিণ আমেরিকার এক পরাশক্তির স্বপ্ন হয়তো এবার আরেক পরাশক্তিই ভাঙবে।

যেহেতু এই দুই দল হল এবারের বিশ্বকাপের সবচেয়ে বড় তিনটি ফেভারিট দলের মধ্যে দুইটি, সেহেতু তাদের মধ্যে আরও একটি শ্বাসরুদ্ধকর লড়াই দেখতে চলেছে পৃথিবী। দু’দলের মধ্যকার সর্বশেষ ম্যাচে ২০২১ কোপা আমেরিকার ফাইনালে ঘরের মাটিতে আর্জেন্টিনার কাছে হতাশাজনকভাবে হেরেছিল ব্রাজিল।

তার ঠিক পর থেকেই অপরাজিত রয়েছে ব্রাজিল, এবং এবারের বিশ্বকাপে কোন নতুন রেকর্ড গড়ারই অপেক্ষায় রয়েছে তিতে’র সাম্বা বাহিণী।

পড়ুন:  আধুনিক ফুটবলে ফলস নাইন'দের প্রভাব: ফলস নাইন এবং সেন্টার ফরোয়ার্ড এর মধ্যকার মূল পার্থক্য

যদিও কোপা আমেরিকা ফাইনালের জয়টি আর্জেন্টিনার ২৮ বছরের শিরোপা খরাটি কাটিয়েছিল, তবে এবার সেটির কারণেই ব্রাজিল তাদেরকে হারানোর জন্য উঠে পড়ে লাগবে। এটিও বলাই বাহুল্য যে, এই ম্যাচের জয়ী দলই আগামী ১৮ই ডিসেম্বর বিশ্বকাপের শিরোপা জয়ের জন্য হট ফেভারিটস হবে। আমাদের মতে, সেই দলটি হল ব্রাজিল।

ফ্রান্স বনাম জার্মানি (France Vs Germany)

এই শীর্ষস্থানীয় ইউরোপীয় এনকাউন্টারটি বিশ্বকাপের সেমি ফাইনালকে জমজমাট করে তোলার জন্য যথেষ্ট। ২০১৪ সালের বিশ্বকাপ জয়ের পথে এই ফ্রান্সকেই সেমি ফাইনালে ১-০ গোলের ব্যবধানে হারিয়েছিল জার্মানরা। কিন্তু, তার পর থেকে দিদিয়ের দেশম এর শিষ্যদের নিকট পর পর ৬টি ম্যাচে হেরেছে ডাই মাইনশ্যাফট খ্যাত জার্মান দল।

লা ব্লুস খ্যাত ফ্রান্স চাইবে তাদের টানা দ্বিতীয় বিশ্বকাপ ফাইনালে খেলতে, কিন্তু হানসি ফ্লিক এর জার্মান সেনারাও ছেড়ে দেওয়ার বান্দা নন। তারা ফ্রান্সের বাড়া ভাতে পানি ঢেলে দিতে প্রস্তুত থাকবে। তবে, নিজেদের দলের খেলোয়াড়দের অনভিজ্ঞতার কারণে জার্মানি হয়তো এবার সেটি করতে সক্ষম হবে না। ফ্রান্সই তাই এই ম্যাচটি জেতার জন্য ফেভারিট।

তৃতীয় স্থান নির্ধারণী ম্যাচ প্রেডিকশন (Third place prediction)

আর্জেন্টিনা বনাম জার্মানি (Argentina Vs Germany)

এটি হতে যাচ্ছে ফাইনালের আগে আরো একটি ফাইনাল। বিশ্বকাপের ফাইনালের ওয়ার্ম আপ হিসেবে এই ম্যাচটি হতে চলেছে অত্যন্ত উত্তেজনাময় একটি ম্যাচ।

উভয় দলের জন্য এই ম্যাচটি প্রচুর বিশ্বকাপ ইতিহাস ধারণ করে, কারণ তারা তিনটি বিশ্বকাপ ফাইনালে একে অপরের মুখোমুখি হয়েছে (১৯৮৬, ১৯৯০, ২০১৪)। এর মধ্যে সর্বশেষ ২টিতেই জিতেছে জার্মানি।

অন্যান্য দেশ যতবার বিশ্বকাপে খেলার সুযোগ পেয়েছে, ইউরোপীয় এই জায়ান্টরা তার থেকে বেশি বার বিশ্বকাপের ফাইনালে খেলেছে। তবে, আর্জেন্টিনার ইচ্ছাশক্তি এবার জার্মানির ইতিহাসকে হার মানাবে বলেই আমরা মনে করি। বিশ্বকাপ শিরোপা জিততে না পারলেও জার্মানির বিরুদ্ধে একটি জয় আর্জেন্টিনাকে কিছুটা হলেও সন্তুষ্টি এনে দিতে পারে। আমরা তাই এখানে আর্জেন্টিনার দিকেই ঝুঁকছি। ব্রোঞ্জ মেডেল যাচ্ছে এবার আলবেসিলেস্তেদের কাছে।

এবার তাহলে সব প্রশ্নের মূল প্রশ্নঃ কে জিততে যাচ্ছে এবারের কাতার বিশ্বকাপ ২০২২ এর অতি মূল্যবান শিরোপা?

ফাইনাল প্রেডিকশন (Final Prediction)

ফ্রান্স বনাম ব্রাজিল (France Vs Brazil)

কাতার বিশ্বকাপ ২০২২ এর ফাইনালটি আমাদের হিসাবে এমন দুইটি দলের মধ্যেই হতে যাচ্ছে যারা ফাইনাল খেলারই যোগ্য, এবং বিশ্বকাপের শুরুতে দাঁড়িয়ে ফ্রান্স বনাম ব্রাজিলের ফাইনাল ম্যাচ ভাবলেই গা শিউরে ওঠে।

নিজেদের মহাদেশের সবচেয়ে বড় রিপ্রেজেন্ন্টেটিভ হল ব্রাজিল, কিন্তু তাদের সর্বশেষ বিশ্বকাপ জয়ের পর (কোরিয়া/জাপান, ২০০২) ২০টি বছর কেটে গিয়েছে। এবং, ফ্রান্স এবার বিশ্বকাপ শিরোপা জিতলে সেটি হবে ২০০৬ বিশ্বকাপ থেকে শুরু করে টানা ৫ম বিশ্বকাপে ইউরোপীয়দের রাজত্ব।

তবে এটি অনেকটা নিশ্চিতই মনে হচ্ছে যে, পিএসজি’র তিন অসাধারণ ফরোয়ার্ড এর মধ্যে একজন নিশ্চয় এবার বিশ্বকাপ শিরোপা হাতে নিয়েই ঘরে ফিরতে চলেছেন।

১৯৯৮ সালের বিশ্বকাপ ফাইনালে এই দুই দল মুখোমুখি হয়েছিল, এবং সেবার ঘরের মাঠে ফ্রান্স ব্রাজিলকে ৩-০ গোলের ব্যবধানে উড়িয়ে দিয়েছিল। সেটি ছিল কোন বিশ্বকাপ ফাইনালে ব্রাজিলের দ্বিতীয় পরাজয়। আমরা মনে করি, ২৪ বছর পর সেই হারের প্রতিশোধ এবার ব্রাজিলিয়ানরা নিয়েই ছাড়বে।

কে জিতবে বিশ্বকাপ ২০২২ শিরোপা? (Who wins the World Cup 2022?)

বিশ্ব ফুটবলের মুকুটের লড়াইয়ে আমরা মনে করি ব্রাজিল এবার শক্তিমত্তার দিক দিয়ে ফ্রান্স এর থেকে এগিয়ে থাকবে। ২০ বছর ধরে চলতে থাকা ব্রাজিলের হেক্সা মিশন এবার শেষ হতে চলেছে। আজ থেকে কয়েক মাস পর যখন কেউ জিজ্ঞেস করবে যে, কাতার বিশ্বকাপ ২০২২ কে জিতেছিল? তখন উত্তর হিসেবে তারা দক্ষিণ আমেরিকার ফুটবল পুজারী দেশটির নামই শুনতে পাবে। আর সাথে আরো শুনবে অপ্রতিরোধ্য এক বিশ্বকাপ রেকর্ডের কথা।

Share.
Leave A Reply