প্রেডিকশন (Prediction)

পর্তুগাল ১ – ১ উরুগুয়ে

ভেন্যুঃ লুসেইল আইকনিক স্টেডিয়াম

ফিফা বিশ্বকাপের এবারের আসরের গ্রুপ পর্যায়ের অন্যতম সেরা ম্যাচগুলির মধ্যে একটি হতে চলেছে এটি। পর্তুগাল ও উরুগুয়ের মত দুই ঐতিহাসিক দল লড়বে একে অপরের বিপক্ষে। গ্রুপ এইচ এর এই গুরুত্বপূর্ণ ম্যাচটিতে আমরা লড়তে দেখব এমন দুটি দলকে, যারা কি না গ্রুপটি থেকে পরের রাউন্ডে ওঠার জন্য ফেভারিট। তাই, এমনটি হতেই পারে যে, এই ম্যাচের ফলাফলের উপরই নির্ভর করবে কোন দল এই গ্রুপ থেকে চ্যাম্পিয়ন হবে।

ফর্ম বিবরণীঃ পর্তুগাল (Form Guide: Portugal)

এবছরের বিশ্বকাপ আসরে সবচেয়ে প্রতিভাবান স্কোয়াডগুলির মধ্যে একটি রয়েছে পর্তুগালের নিকট, এবং বিশ্বকাপ শিরোপা জয়ের জন্য অন্যতম ফেভারিট দল হিসেবেও অনেকেই তাদেরকে গণ্য করছেন। তারা শিরোপাটি জয় করতে পারলে সেটিই হবে তাদের লম্বা ইতিহাসের প্রথম বিশ্বকাপ শিরোপা, এবং তাদের নিকট যে পরিমাণে অভিজ্ঞতা ও প্রতিভার মিশ্রণ রয়েছে, তাতে সেই স্বপ্নটি মোটেও আকাশ-পাতাল ভাবনা নয়। তাদের খেলা সর্বশেষ ৮টি ম্যাচে তারা মোট ৪টি ক্লিন শিট অর্জন করতে পেরেছে, এবং সেই ৮ ম্যাচে তারা মোট ১৬টি গোলও স্কোর করতে সক্ষম হয়েছে (গড়ে ম্যাচপ্রতি ২টি করে গোল)।

প্রকৃতপক্ষে, বিশ্বকাপে প্রবেশের পূর্বে পর্তুগালের রেকর্ড বেশ উৎসাহজনকই বলা চলে। কারণ, তারা এবছর খেলা তাদের সেই ৮টি ম্যাচের মধ্যে ৫টিতেই জয়ের দেখা পেয়েছে। বাকি ৩টি ম্যাচের মধ্যে সেলেসাও দাস কুইনাস খ্যাত পর্তুগাল ২টিতে ড্র করে, এবং পরাজিত হয় মাত্র একটি ম্যাচে।

পর্তুগাল কোচ ফার্নান্দো সান্তোস ইতিমধ্যে পর্তুগালের কোচ হিসেবে তার তৃতীয় আন্তর্জাতিক শিরোপা জয়ের স্বপ্নের কথা প্রকাশ করেছেন, এবং সেই স্বপ্নটি শুধু তার একার নয়, বরং দলের প্রত্যেকটি খেলোয়াড়েরও বটে।

উরুগুয়ের মত একটি শক্তিশালী দলের বিপক্ষে জয়ী হতে পারলে তা তাদের নিন্দুকদের চুপ করাতে অনেক সাহায্য করবে।

পড়ুন:  এএফসি বোর্নমাউথ বনাম এভারটন প্রিভিউ এবং প্রেডিকশনঃ হাড্ডাহাড্ডি লড়াইয়ে এভারটনের জয়ের সম্ভাবনাই বেশি

ফর্ম বিবরণীঃ উরুগুয়ে (Form Guide: Uruguay)

উরুগুয়েও এবারের বিশ্বকাপে অনেক স্বপ্নের ঝুড়ি নিয়েই প্রবেশ করবে। যেহেতু তাদের দুই অসাধারণ স্ট্রাইকার লুইস সুয়ারেজ এবং এডিনসন কাভানি এবারই তাদের সর্বশেষ বিশ্বকাপ খেলতে চলেছেন, সেহেতু পুরো দলটিই চাইবে গলায় বিশ্বকাপ জয়ীর মেডেল পড়িয়েই এই দুই কিংবদন্তিকে আন্তর্জাতিক ফুটবল থেকে বিদায় জানাতে।

২০২২ সালে খেলা তাদের তাদের ৯টি ম্যাচের মধ্যে কেবলমাত্র একটিতেই পরাজিত হয়েছে উরুগুয়ানরা, এবং তন্মধ্যে ৭টি ম্যাচেই তারা ক্লিন শিট রাখতেও সক্ষম হয়েছে। তাদের নিকট রয়েছে ডিফেন্সিভ দৃঢ়তা, এবং গোলস্কোরিং এর দিক থেকেও তারা রয়েছে বেশ ভালো ফর্মে (২০২২ সালে এ পর্যন্ত তারা মোট ২২টি গোল করেছে)। এবারের বিশ্বকাপে তাদেরকে হারানোটা বেশ কঠিনই হবে বৈকি।

ম্যাচটিতে যা যা ঘটতে পারে (How the game could go)

পর্তুগাল চাইবে উরুগুয়ের বিপক্ষে প্রতিশোধ তুলে নিতে, কারণ চার বছর আগে অর্থাৎ ২০১৮ সালে অনুষ্ঠিত রাশিয়া বিশ্বকাপে এই উরুগুয়েই তাদেরকে হারিয়ে টুর্নামেন্ট থেকে ছিটকে দিয়েছিল। সেবার এডিনসন কাভানির করা গোল দুইটিই উরুগুয়ের জন্য যথেষ্ট ছিল। তবে, এবার তারা ভালো করেই জানে যে, সেবারের পর্তুগাল দলের চেয়ে এবারের পর্তুগাল দলটি অনেকগুণে বেশি শক্তিশালী।

ম্যাচটি শুরু থেকেই প্রচন্ড ধীরগতিতে এগুতে থাকবে, এবং শেষ পর্যন্ত ১-১ গোলে ড্র হবে বলেই আমরা মনে করি।

Share.
Leave A Reply