প্রেডিকশন (Prediction)

ঘানা ০ – ২ উরুগুয়ে

ভেন্যুঃ আল জানুব স্টেডিয়াম

গ্রুপ এইচে শত্রুতার হাতছানি। এই ম্যাচটি যে কারো জন্য হতে চলেছে একটি মাস্ট-ওয়াচ ম্যাচ, কেননা দল দুইটির মধ্যে সাম্প্রতিক বিশ্বকাপ ইতিহাসে একটি শত্রুভাবাপন্ন সম্পর্ক তৈরি হয়েছে। ২০১০ বিশ্বকাপে এই দুই দলের মধ্যকার কোয়ার্টার ফাইনাল ম্যাচে উরুগুয়ান ফরোয়ার্ড লুইস সুয়ারেজ আধুনিক সময়ের “ঈশ্বরের হাত” এর প্রযোজনা করেছিলেন। তিনি ঘানার একটি নিশ্চিত গোল হাত দিয়ে আটকিয়ে লাল কার্ড দেখেন ঠিকই, কিন্তু ফলস্বরূপ পাওয়া পেনাল্টিটি ঘানা স্ট্রাইকার আসামোয়া জিয়ান মিস করে বসেন। ম্যাচটিতে জিতলে প্রথম আফ্রিকান দল হিসেবে বিশ্বকাপ সেমি ফাইনাল খেলার গৌরব অর্জন করতে পারতো ঘানা, তাও আবার আফ্রিকার মাটিতেই (দক্ষিণ আফ্রিকা)।

উরুগুয়ান’রা অবশ্য বলতেই পারে যে ঐ ম্যাচে ঘানার ভাগ্য ঘানার হাতেই ছিল, কিন্তু আসামোয়া জিয়ান সেটির সদ্ব্যবহার করতে পারেননি। ১২ বছর ধরে এই ম্যাচের অপেক্ষা করে ছিলেন অনেকেই। এখন এসে তারা এমন একটি ম্যাচে মুখোমুখি হচ্ছে যা হয়তো গ্রুপ পর্যায়ের ম্যাচ হয়েও নক আউট পর্বের ম্যাচের আমেজ দিবে।

ফর্ম বিবরণীঃ ঘানা (Form Guide: Ghana)

২০১৮ রাশিয়া বিশ্বকাপে অংশ নিতে না পারায় এবারের বিশ্বকাপ থেকেও ঘানার উপর খুব বেশি প্রত্যাশা কারোরই নেই। ব্ল্যাক স্টারস খ্যাত ঘানার দলে আর আগের আসরগুলির মত তেমন কোন বড় তারকা খেলোয়াড় নেই। তবে, এখন তারা আরো কম্প্যাক্ট এবং রক্ষণাত্মক একটি দল তৈরি করতে সক্ষম হয়েছে।

পুরো বিশ্বকাপ বাছাই পর্ব জুড়েই ঘানা ছিল অনেকটাই অনাকর্ষণীয় এবং রক্ষণাত্মক, তবে সেটি তখন তাদের কাজে দিয়েছিল। কিন্তু, ২০২২ সাল শুরু হওয়ার পর থেকেই তাদের ফর্মে ভাঁটা পড়তে শুরু করে। তারপরও তারা অ্যাওয়ে গোলের ভিত্তিতে প্লে অফ জিতে বিশ্বকাপে অংশ নেওয়ার সুযোগ পেয়ে যায়। কাতার বিশ্বকাপের জন্য কোয়ালিফাই করার পর থেকে তারা ৬টি ম্যাচ খেলে তার মধ্য থেকে ২টিতে জিতেছে, ২টিতে ড্র করেছে, এবং ২টিতে পরাজিত হয়েছে।

পড়ুন:  ইভারটন বনাম উলভস্‌: আগ্রহী দল প্রথম জিতটি অনুশোচিত

ফর্ম বিবরণীঃ উরুগুয়ে (Form Guide: Uruguay)

লা সেলেস্তে খ্যাত উরুগুয়ে দলটি ঘানার চেয়ে অনেক বেশি অভিজ্ঞ, এবং বিশ্বকাপে প্রবেশের পূর্বে তাদের ফর্মও অনেকটাই শ্রেয়। এই ম্যাচে তাই তারাই ফেভারিট।

দুই বারের বিশ্ব চ্যাম্পিয়ন দলটি চলতি বছরে মোট ৯টি ম্যাচ খেলে তার মধ্য থেকে ৭টিতেই জয়লাভ করেছে, এবং বাকি দুইটিতে যথাক্রমে ১-০ গোলে হেরেছে, এবং গোলশূন্য ড্র করেছে। তারা এ ব্যাপারটির পূর্ণাঙ্গ সদ্ব্যবহার করতে চাইবে যে, ভালো বা বড় দলগুলির বিপক্ষে ঘানার সাম্প্রতিক রেকর্ড বেশ বাজে।

ম্যাচটিতে যা যা ঘটতে পারে (How the game could go)

এই ম্যাচে আফ্রিকান দলটির জন্য জয় এনে দিতে পারে শুধুমাত্র তাদের মধ্যে জমে থাকা ক্ষোভ। এই ম্যাচে যাই হোক না কেন, ২০২২ বিশ্বকাপের গ্রুপ পর্যায় শেষে ঘানা শুধুমাত্র এটিই চাইবে যেন তারা নিজেদের সর্বোচ্চটা দিয়ে থাকে, এবং সব ম্যাচে হারলেও যেন প্রতিযোগিতা করে হারে। কাগজে কলমে দেখলে পর্তুগালের পাশাপাশি এই গ্রুপটি থেকে উরুগুয়েই পরবর্তী রাউন্ডে যাওয়ার জন্য ফেভারিট, এবং পরের রাউন্ডে মোমেন্টাম ধরে রাখতে হলে ঘানার বিপক্ষে এই ম্যাচটিতে জয় তাদের জন্য বেশ প্রয়োজনীয়।

Share.
Leave A Reply