প্রেডিকশন (Prediction)

আর্জেন্টিনা ২ – ১ ক্রোয়েশিয়া (অতিরিক্ত সময় শেষে)

ভেন্যুঃ লুসেইল আইকনিক স্টেডিয়াম

আর্জেন্টিনা ও ক্রোয়েশিয়া নিজেদের পথের সবচেয়ে কঠিন বাঁধাগুলি পেড়িয়ে কাতারে চলমান এবারের ২০২২ ফিফা বিশ্বকাপের সেমি ফাইনাল পর্যায়ে একে অপরের বিপক্ষে মাঠে নামতে চলেছে। 

সকলেরই প্রত্যাশা এই যে, এটি একটি শ্বাসরুদ্ধকর ম্যাচ হতে চলেছে, এবং দু’দলের খেলোয়াড়দের মধ্যে কি ধরণের ফিজিক্যাল লড়াই এবং বাকবিতণ্ডা আমরা দেখতে পেতে পারি, তা ভেবে এখনি অনেকে উত্তেজিত হয়ে পড়তেই পারেন। ক্রোয়েশিয়া অধিনায়ক লুকা মদ্রিচও মুখিয়ে থাকবেন আর্জেন্টিনার বিপক্ষে নিজের ডাবলটি সম্পন্ন করতে। এর আগে গত ২০১৮ বিশ্বকাপের গ্রুপ পর্যায়ে তিনি এবং তার দল আর্জেন্টিনাকে বেশ সহজেই (৩-০ গোলের ব্যবধানে) হারিয়ে দিতে সক্ষম হয়েছিল। সেবার ক্রোয়েশিয়া শেষ পর্যন্ত বিশ্বকাপের রানার্স আপ হিসেবে আবির্ভূত হয়েছিল।

ফর্ম বিবরণীঃ আর্জেন্টিনা (Form Guide: Argentina)

নিজেদের গ্রুপ পর্যায়ের ম্যাচগুলিতে বেশ সহজেই উতড়িয়ে যাওয়ার পর, এবং রাউন্ড অব ১৬ তে অস্ট্রেলিয়াকে ২-১ গোলে হারানোর পর এবারের বিশ্বকাপের কোয়ার্টার ফাইনালে নেদারল্যান্ডসের বিপক্ষে সবচেয়ে বড় পরীক্ষার সম্মুখীন হয় আর্জেন্টিনা।

ডাচ’দের বিপক্ষে ম্যাচটিতে দ্বিতীয়ার্ধের প্রথমাংশেই দুই গোলে এগিয়ে গিয়ে আর্জেন্টিনা জয় অনেকটা নিশ্চিতই করে ফেলে। তবে, ফুটবল দেবতারা আরো অনেক নাটকীয়তা তখনও লুকিয়ে রেখেছিলেন। ম্যাচের মূল ৯০ মিনিটের শেষের দিকে দুইটি গোলই পরিশোধ করে দিতে সক্ষম হয় নেদারল্যান্ডস, এবং খেলাটি শেষমেষ গড়ায় পেনাল্টি শুট আউটে। বর্তমানে আর্জেন্টিনার সবচেয়ে বড় তারকা লিওনেল মেসি নিঃসন্দেহে এবারের বিশ্বকাপে অসাধারণ ফর্ম প্রদর্শন করে চলেছেন। তবে, এমন একটি ক্রোয়েশিয়া দলের বিপক্ষে তার একার সেই ফর্ম যথেষ্ট নাও হতে পারে, যারা কি না কাতার বিশ্বকাপ ২০২২ এ ইতিমধ্যে ‘জায়ান্ট কিলার’ এবং ‘কামব্যাক কিং’ এর মত খেতাবগুলি জিতে নিয়েছে।

ফর্ম বিবরণীঃ ক্রোয়েশিয়া (Form Guide: Croatia)

ক্রোয়েশিয়া এবারের বিশ্বকাপে তাদের অংশগ্রহণকৃত সকল ম্যাচেই একটি ‘নেভার-ছে-ডাই’ অঙ্গভঙ্গি প্রদর্শন করেছে, এবং তাদের পুরো টুর্নামেন্টের সারমর্মই হল সেটি। গোল ব্যবধানের উপর ভর করে গ্রুপ ‘এফ’ থেকে কোনরকম পরের রাউন্ডে অগ্রসর হওয়ার পর রাউন্ড অব ১৬ এবং কোয়ার্টার ফাইনালে তারা যথাক্রমে জাপান এবং ব্রাজিলের বিপক্ষে ড্র করতে সমর্থ হয়। তাদের খেলাগুলি থেকে একটি বিষয় খুব স্পষ্ট হয়ে গিয়েছে এবং সেটি হল যে, প্রতিপক্ষের শক্তির জায়গাগুলিকে চিহ্নিত করে সে অনুসারে নিজেদের গেমপ্ল্যান তৈরি করে প্রতিপক্ষকে প্রতিহত করা এবং পেনাল্টি শুট আউট পর্যন্ত খেলা নিয়ে যাওয়াটাই হল ক্রোয়েশিয়া দলের মূল পরিকল্পনা বা ট্যাকটিক।

পড়ুন:  ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড বনাম কোপেনহেগেন পূর্বরূপ

স্পট কিক বা পেনাল্টি কিক এর ক্ষেত্রে তাদের ট্যালিসমানিক গোলকিপার ডমিনিক লিভাকোভিচ পরিণত হয়েছেন গোলপোস্টের মাঝে একটি আতঙ্কের নামে। তবে, হয়তো খেলার মাঠে হাতাহাতি ও বাকবিতণ্ডার প্রস্তুতিও তাদের নেওয়া উচিৎ, কেননা বর্তমানের আর্জেন্টিনা দলটি মোটেও পূর্বের যেকোন আর্জেন্টিনা দলের মত মিষ্টভাষী ও নরম দল নয়।

ম্যাচটিতে যা যা ঘটতে পারে (How the game could go)

লিওনেল মেসি তার দলের অন্য সবার চেয়ে বেশি সজাগ থাকবেন এই ম্যাচটিতে, কেননা তিনি এবং তার বর্তমান আর্জেন্টিনা দলের হাতে গোনা কয়েকজন সতীর্থ গত বিশ্বকাপের সেই ম্যাচটিতে খেলেছিলেন, যেখানে তারা লজ্জাজনকভাবে পরাজিত হয়েছিলেন ক্রোয়েশিয়ার নিকট।

ম্যাচের সকল পরিসংখ্যান ও শিরোনাম তার অনুকূলেই যাবে ঠিকই, কিন্তু শেষমেষ ম্যাচের ফলাফল নির্ধারণ হবে দু’দলের ইচ্ছাশক্তির উপর ভিত্তি করে। তবে, সব মিলিয়ে, আমাদের মতে ম্যাচটিতে আর্জেন্টিনাই ফেভারিট হিসেবে প্রবেশ করবে, কেননা পর পর এতগুলি অঘটন ঘটানোর সামর্থ্য ক্রোয়েশিয়ার আছে বলে আমরা মনে করি না।

Share.
Leave A Reply