প্রেডিকশন (Prediction)

চেলসি ১ – ১ ক্রিস্টাল প্যালেস

চেলসি নিজেদেরকে বর্তমানে একটি অসামঞ্জস্যপূর্ণ অবস্থানে খুঁজে পাচ্ছে। অল ব্লুস’রা বর্তমানে প্রিমিয়ার লীগ টেবিলের ১০ম স্থানে অবস্থান করছে, এবং চ্যাম্পিয়নস লীগ পজিশনগুলি থেকে ১০ পয়েন্টের দূরত্বে অবস্থান করছে। সম্প্রতি এমন একটি পিরিয়ড গিয়েছে, যেখানে তাদের সকল প্রতিদ্বন্দ্বী দলগুলিই পয়েন্ট অর্জন করেছে, কিন্তু তারা বার বার পয়েন্ট খুইয়েই গিয়েছে। তাদের সাম্প্রতিক ফর্ম এতই বাজে যে, তাদের সমর্থকরা ইতিমধ্যে নতুন ম্যানেজারের বিরুদ্ধে বলতে শুরু করে দিয়েছেন।

গ্রাহাম পটার হয়তো তার নতুন দলের হয়ে কেবলমাত্র কয়েকটি ম্যাচেই নেতৃত্ব দিয়েছেন, তবে এখনি তাকে চাকরিচ্যুত করার কথা নাকি ভাবছে চেলসি কর্তৃপক্ষ।

অন্যদিকে, ক্রিস্টাল প্যালেস একটি সুখময় ও স্বস্তির পজিশনে রয়েছে। প্যাট্রিক ভিয়েরার শিষ্যরা লীগ টেবিলের ১২তম পজিশনে রয়েছে, চেলসির থেকে মাত্র ৩ পয়েন্ট পেছনে, এবং রেলিগেশন জোন থেকে ৭ পয়েন্ট দূরে। তারা এমনটি অর্জন করেছে তাদের আক্রমণাত্মক ও দর্শনীয় ফুটবলের মধ্য দিয়েই।

ঈগলস’রা বর্তমানের এই চেলসি দলের বিপক্ষে অনেক ভালো কিছু অর্জন করার সামর্থ্য রাখে, কেননা এই চেলসি দলটি ইঞ্জুরিতে জর্জরিত, এবং খুবই বাজে ফর্ম পার করছে। তাই, তারা স্ট্যাম্ফোর্ড ব্রিজ থেকে একটি ইতিবাচক ফলাফল নিয়েই মাঠ ছাড়তে চাইবে।

গুরুত্বপূর্ণ দিকসমূহ (Key notes)

  • চেলসি এবারের মৌসুমে প্রিমিয়ার লীগে তাদের খেলা মোট ১৭টি ম্যাচের মধ্যে মাত্র ৭টিতেই জয়লাভ করতে পেরেছে, এবং মোটমাট ২৫ পয়েন্ট অর্জন করতে পেরেছে। এর মানে হল, তার ম্যাচপ্রতি ১.৪ পয়েন্ট করে অর্জন করেছে। প্রিমিয়ার লীগের শীর্ষ চারে নাম লিখাতে হলে এর চেয়ে অনেক ভালো গড় পয়েন্ট অর্জন করতে হয়।
  • ক্রিস্টাল প্যালেস এবারের মৌসুমে মোট ২৫টি গোল হজম করেছে। প্রিমিয়ার লীগ টেবিলের নিম্নভাগের দলগুলির মধ্যে এটিই দ্বিতীয় সেরা ডিফেন্সিভ রেকর্ড। শুধুমাত্র এভারটন তাদের চেয়ে কম গোল হজম করেছে।
  • গ্রাহাম পটারের অধীনে চেলসি তাদের সর্বশেষ ৫টি হোম লীগ ম্যাচের মধ্যে কেবলমাত্র ২টিতেই জয়লাভ করতে পেরেছে। এ সময়ের মধ্যে তারা গোল করেছে ৬টি, এবং গোল হজম করেছে ৩টি। তাদের হোম জয়গুলি এসেছে এএফসি বোর্নমাউথ এবং ওলভারহ্যাম্পটন ওয়ান্ডারার্স এর বিপক্ষে, যারা হল প্রিমিয়ার লীগ টেবিলের তলানিতে থাকা দুইটি স্ট্রাগলিং দল।
পড়ুন:  ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড বনাম ক্রিস্টাল প্যালেস প্রিভিউ এবং প্রেডিকশন: জয়ের ধারায় ফেরার লক্ষ্যে রেড ডেভিলরা

ফর্ম বিবরণীঃ চেলসি (Form Guide: Chelsea)

অল ব্লুস’রা তাদের পরবর্তী ম্যাচে স্ট্যাম্ফোর্ড ব্রিজে ক্রিস্টাল প্যালেসের বিপক্ষে ফেভারিট হিসেবেই মাঠে নামবে, যেখানে তারা তাদের সর্বশেষ হোম ম্যাচে ম্যানচেস্টার সিটির নিকট পরাজয়ের গ্লানি ভুলে জয়ের ধারায় ফিরতে চাইবে।

লীগে তাদের খেলা সর্বশেষ ৫টি ম্যাচের মধ্যে তারা কেবল একটিতে জয়লাভ করেছে, এবং তিনটিতেই হেরেছে, যার মধ্যে তারা শুধুমাত্র ৩টি গোল স্কোর করতে পেরেছে। সেই গোলগুলিও এসেছে বোর্নমাউথ এবং নটিংহ্যাম ফরেস্টের মত দলগুলির বিপক্ষে। এই সময়কালে তারা কেবল একটি ক্লিন শিট অর্জন করতে পেরেছে, এবং মোট ৪টি গোল হজম করেছে।

সম্প্রতি চেলসি ভালো দলগুলির বিপক্ষে কোন প্রকার সৃজনশীলতা ও বুদ্ধিদীপ্ততা দেখাতে ব্যর্থ হয়েছে। প্যালেসের বিপক্ষে মাঠে নামার সময় তাদের খেলার মান আরো অনেকটাই বাড়াতে হবে, নতুবা তাদেরকে আবারো খালি হাতে ফিরতে হবে।

ফর্ম বিবরণীঃ ক্রিস্টাল প্যালেস (Form Guide: Crystal Palace)

তাদের প্রতিপক্ষ চেলসির মতই ক্রিস্টাল প্যালেসও সম্প্রতি খুব একটা ভালো ফর্ম প্রদর্শন করতে পারছে না। তাদের খেলা সর্বশেষ ৭টি প্রিমিয়ার লীগ ম্যাচের মধ্যে ঈগলস’রা জয়লাভ করেছে ৩টিতে, এবং হেরেছে ৪টিতে। এই সময়কালে তারা কেবলমাত্র ৪টি গোল স্কোর করতে পেরেছে, কিন্তু গোল হজম করেছে ১২টি।

চেলসি হয়তো বর্তমানে খুব একটা ভালো ফর্মে নেই, কিন্তু তারপরও তারাই এই ম্যাচটিতে ফেভারিটের আসনে রয়েছে। ক্রিস্টাল প্যালেস তাদের ঘরের মাঠে যেমন শক্তিশালী ডিফেন্সিভ পারফর্মেন্স প্রদর্শন করে থাকে, এখানেও তাদেরকে তেমনি পারফর্মেন্স উপহার দিতে হবে।

তবে, তাদের জন্য আরেকটি আশার বাণী হল এই যে, প্রিমিয়ার লীগে চলতি মৌসুমে সেরা অ্যাওয়ে ডিফেন্সগুলির তালিকায় তারা ৪র্থ পজিশনে রয়েছে। তারা তাদের সফরগুলিতে মাত্র ১১টি গোল হজম করেছে। শুধুমাত্র বর্তমানে লীগের শীর্ষ তিন দলেরই এর চেয়ে ভালো অ্যাওয়ে ডিফেন্সিভ রেকর্ড রয়েছে।

চেলসি বনাম ক্রিস্টাল প্যালেস সম্পর্কিত কিছু তথ্য (Chelsea Vs Crystal Palace Facts)

  • প্রিমিয়ার লীগে চেলসি এর আগে ক্রিস্টাল প্যালেসকে তাদের ঘরের মাঠ স্ট্যাম্ফোর্ড ব্রিজে মোট ১২ বার স্বাগত জানিয়েছে। তার মধ্যে তারা ৯টিতে জয়লাভ করেছে, ২টিতে হেরেছে, এবং ১টিতে করেছে ড্র।
  • একবিংশ শতাব্দীতে পা রাখার পর থেকে এই দুই দল কখনোই একে অপরের বিরুদ্ধে ড্র করেনি। এই ফিক্সচারের ইতিহাসে কমপক্ষে একটি গোল তো হয়েছেই হয়েছে, তা সে যে দলই স্কোর করুক না কেন।
  • চেলসির মাঠে গিয়ে সর্বশেষ ২০১৭ সালে তাদেরকে হারাতে পেরেছিল ক্রিস্টাল প্যালেস।
পড়ুন:  ওয়েস্ট হ্যাম ইউনাইটেড বনাম ওলভারহ্যাম্পটন ওয়ান্ডারার্সঃ উভয় দলের জন্যই তিন পয়েন্ট অর্জন করা বেশ জরুরি

যেসকল খেলোয়াড়দের উপর সবার নজর থাকবে (Players to watch out for)

থিয়াগো সিলভা – চেলসি (Thiago Silva – Chelsea)

৩৮ বছর বয়সেও থিয়াগো সিলভা তার সেরা ফর্ম ধরে রাখতে সমর্থ হয়েছেন, এবং বিষ্ময়কর হলেও সত্যি এই যে, এবারের মৌসুমে চেলসির সেরা পারফর্মার হলেন তিনিই। এই ম্যাচেও তিনি চেলসির হয়ে একটি অতি গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করবেন, কেননা ক্রিস্টাল প্যালেসকে রুখে দিতে হলে তাকেই চেলসির ডিফেন্স সামলাতে হবে।

উইল্ফ্রিড জাহা – ক্রিস্টাল প্যালেস (Wilfried Zaha – Crystal Palace)

ক্রিস্টাল প্যালেসের সর্বোচ্চ গোলদাতা এবং তাদের সেরা পারফর্মার উইল্ফ্রিড জাহাকে আবারো তাদের হয়ে একটি গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করতে হবে, যদি চেলসির মাঠ থেকে কোনকিছু নিয়ে ঘরে ফিরতে চায় ঈগলস’রা। চেলসির বিপক্ষে অঘটন ঘটাতে হলে তাকে কিছু একটা করতেই হবে। তার ৬টি গোল ও ২টি এসিস্টের তালিকায় আরো কিছু যোগ করতেই হবে।

চেলসি বনাম ক্রিস্টাল প্যালেস প্রেডিকশন (Chelsea Vs Crystal Palace Prediction)

এই ফিক্সচারটিতে আমাদের রায় হল একটি ১-১ গোলের ড্র। এর পেছনে মূল কারণই হল এই যে, আমাদের ধারণা বর্তমানে চেলসির দলটি বহু ইঞ্জুরির কারণে অতি দূর্বল হয়ে পড়েছে। ক্রিস্টাল প্যালেসকে আঘাত করার জন্য যথেষ্ট গোলাবারুদ তাদের মজুদে নেই। অন্যদিকে, সুযোগ পেলেই চেলসির নড়বড়ে ডিফেন্সকে আঘাত করার ক্ষমতা রাখে প্যাট্রিক ভিয়েরার শিষ্যরা।

এটি একটি বিনোদনে ভরা ম্যাচ হতে চলেছে, যেখানে শেষ পর্যন্ত কোন দলই অপর দলটির উপর নিজেদের প্রাধান্য বিস্তার করতে পারবে না।

Share.

Leave A Reply