বর্মুথ বনাম আস্টন ভিলা প্রিভিউ

পর্যাপ্ত তথ্যে বলা যায় যে বর্মুথ নতুন ম্যানেজার আন্ডোনি ইরাওলা এর নেতৃত্বে আবেগ হারিয়ে গেছেন। সেই স্প্যানিয়ার্ডটি, যে সম্প্রতি গত গ্রীষ্মকালে নিয়মিত হতে পারেনি এপিএলে (এল১) শুরুর নয়টি লিগ ম্যাচে জয় জিতে। যদিও বর্মুথের শপথের শেষ চারটি ম্যাচের মধ্যে তিনটি জিতেছেন এবং বনামে শেফিল্ড ইউনাইটেডকে শেষে ৩-১ সফলতার বিকল্প পেলেন এক সপ্তাহের আগে, আইরাওলা বলেছেন যে তাঁর দলটিকে “এই ফর্মটি ধরিয়ে রাখতে” বলেছেন। প্রিমিয়ার লীগের (পিএল) শেষবারের বিজয় আরোহীও বর্মুথ ভর্তি করেছে নিউকাসল এবং বার্নলির বিরুদ্ধে জয় অর্জন করেছেন। সেসব কারণে বর্মুথ নিষ্কর্ষের উদ্বোধন করতে যাচ্ছেন যে, প্রায় ছয় বছর অনেক সময় পর প্রথমবারেই, বিটালিটি স্টেডিয়ামে এক তৃতীয়বার জিতে উঠবেন!

 

তবে তাদের জন্য প্রায় আর কারও চ্যালেঞ্জ হতে পারে না, কারন সেপ্টেম্বরের আন্তর্জাতিক বিরামের পর থেকে একটি টিম আস্টন ভিলা থেকে (পিএল-ে) সর্বাধিক পয়েন্ট জিতেছেন (এ)-ে। এাটা অনুপ্রাণিত হয়েছে উনাই এম্রির দলের জন্য, যারা ঐতিহাসিক ব্যাপার হিসাবে ইউইএফএ চ্যাম্পিয়ন্স লীগে প্রথমবার কোয়ালিফাইকেশন পাওয়ার স্বপ্ন দেখছেন, যারা ইউইএফএ ইউরোপা কনফারেন্স লীগে দীর্ঘ মার্চ চলাকালীন চালিয়েছেন।

 

শেষ দিনের পাঠায় লেগিয়া ওয়ারসকে দুই বার পর্‌যালোচনা করে আস্টন ভিলা ২-১ জিতেছেন, যা ম্যানেজারকে “খুশি” বুঝিয়েছেন। শুক্রবারে একই বনামের ম্যাচের মধ্যে আশা রাখছেন, ম্যাচের মধ্যে তাঁরা নব হতে পারে এমনটি। পিএলের শেষ পাঁচটি H2H (প্রতি প্রতিষ্ঠানের গতির ঘটনা) ম্যাচের মধ্যে একবার বর্মুথকে হারিয়েছেন মাত্র (L4)।

 

অবদানের দিকে খেলোয়া যোগানেও পর্যাপ্ত কারণ বর্মুথের জাস্টিন ক্লুইভার্ট, যিনি সে-ডিসের শুরুতেই গোল করেন, সেই গতির অনুযায়ী ইউরোপের পাঁচটি ঐতিহাসিক শীর্ষ পাঁচ লীগে একাধিক গোল করেন একতলা খেলোয়া পাঠকদের মধ্যে।

 

 

একই ভাবে ক্লাব এবং দেশের জন্য যখন ওলি উয়াটকিংস গোল করেন, তখনই দল নিখুঁত অবস্থান বজয় করে যায় (জেয়ার নাম্বার ১৪)।

পড়ুন:  ক্রিস্টাল প্যালেস বনাম বার্নলি রিপো

 

হট স্টাট

পিএলে সবচেয়েই বেশি পয়েন্ট সংগ্রহ করছেন একটি দল আস্টন ভিলা যখনও কেউ তাদের প্রথম গোল করার বিচারে এখনো কোন পয়েন্ট হারিয়েনি (W7)।

 

Share.

Leave A Reply