লিভারপুল বনাম নরউইচ ম্যাচ রিপোর্ট

জ্যুর্জেন ক্লপের লিভারপুল এফএ কাপের চতুর্থ রাউন্ড ম্যাচের জললোচনা লাহোলো গোলের মুখে, এঅানফিল্ডে নরউইচ সিটি কে হারিয়ে চলে গেলে। লিভারপুল এখানে অনযন্তকালে (W17, D2) অপলম্বনরহিত ১৯টি মুখ মাথা দিলেন।

 

আফসোসে, এই খেলার আগে ক্রিসচির বড় অনুদেশ হিসেবে ক্লপের শগীনকর ঘোষাঘুসবকেন্দ্রিক ঘোষণা ছিল। কিন্তু ঘরের পাঠালো একটি ব্যতিষ্ঠ শোকর্তা খবরের কাজকেঁদের ঝুঁকি আচ্ছাদিত করেনি ব্লাডসদের কর্মা। তারা মূলত ভালো উদ্যোগে খুব কাছাকাছি শুরু করলো খেলাটি, নরউইচের গুরুত্বপূর্ণ রেজিস্টারের সামর্থ্য পেটে। চয়েসাটি দিন মাত্র ১৬ মিনিট এসেছিলেন যখন ডেবিউটান্ট জেমস মাকনেল কার্টিস জোনসকে একসাথে ধরে নিয়ে গুল্লু ফেলেন, যিনি আপনার ক্যাম্পেইনের পাঁচটি গোল সম্পর্কে রেকর্ড ছাড়িয়ে ফেলেন।

 

ক্যানারিজ গুটিয়েছেন না বিশ্রম তানা, কিন্তু মিনিটগুলোর পরেই সেগুলোকে সুলভ হেডিংর দ্বারা এনফিল্ডের নিদড়া পরিবতন করে নিদর্শনে, সিনিয়র নমবর্ণ বেন গিবসনের দ্বারা সমানু হিড় হানসে। কিকঅফ এগার দিয়েই লিভারপুলের আগে থেকে যুগপঞ্জিশতিতেও ১৩টি গোল টাম্বুরে বাসতো, এখানেও দ্রুত প্রতিক্রিয়া দিয়ে নিষ্পত্তি করলো। লংডের ঘাঁটিয়ে করা টার্নওভারের কবজঙ্গনে কোডি গাকপো বোগা এবং রায়ান গ্রেভেনবার্চ উভশ পারতেননি।

 

নরউইচের নিরাপত্তার ভুলগুলো খুব দ্রুতই একটি গল্প বানিয়ে ফেলল, যখন ডিযোগো জোটা একটি অনয়মিত গিবসন মেজে ধরে একটি প্রথম সময়ের স্কাট বিভ্রান্তি জনিত শট মারেন জর্জ লংকের পাশের দিকে। নতুন কিরুনটি প্রয়োজন হওয়ার জন্য, দাবিত ভাগ্নি এমনটা করলেন ডেভিড ভাগনার, কিনতু বলে টানার প্ল্যান নির্বাচন করেছিলো লিভারপুলের আপাত পরিবর্তনকারীরা, যি আর্থিক স্থলে নিক্ষিপ্ত করা ভ্যান ডাইককে পাঁচটির গোল যুক্ত করলেন ডমিনিক সাবসিজলাইর কর্নার অট্টাদিকে।

 

লালটিদের ভালতেই পরস্পরের কোসাই নাই গিরিশবর্তী সমীকরণের সাথে স্যান্ড্রো রবার্টসনও আউট কোংশে জুড়ে তুলা হিসেবে যোগদান হন, আর চ্যামপিয়নশিপের দলটি ভঙ্গিতের আশ্রান্ত সময়টিতে সোলিমান রবনের দ্বারা নলাকিয়ে ফেলা মধ্যে, নরউইচ সম্পাদিত একটি প্রচুর শুট থেকে৷

পড়ুন:  উলভস বনাম ক্রিস্টাল প্যালেস: হোস্টদের লক্ষ্য শীর্ষ অর্ধে শেষ করা

 

পর পরই কার্যাবলি ঘটছিল, ডিয়োগো জোটা এবং গ্রেভেনবার্চের শেষ থেকে হতাশায় আরেকটি জায়গা ভঙ্গ করলেন লং, প্রতিদ্বন্দ্বী এর লঙ্ঘন প্রমাণ করে দিয়েছিল মুহূর্তে বড়টেই রক্ষা করে, পরে প্রথম ফোস্টে আপাতত নিজের গোল অর্জন করেন বাটপোস্ট থেকে নামলেন গ্রেভেনবার্চে।

 

চূড়ান্ততে লিভারপুলের কিছুরই অতিক্রম ছিল অনুকথন, নলম্বিক বুটের মেলাছেলের সাথে তামার জারিয়ে পর পরে ১২তম বার এফএ কাপে পরগমন সম্পন্ন করতে হয়েছিল লোয়ার-লিগ দলদের সংঘর্ষ থেকে। মোটামুটি, নরউইচ ঘরে না প্রিমিয়ার লীগকারীদের বিপক্ষে৷

 

Share.

Leave A Reply