ম্যাচউইক অ্যাওয়ার্ড আর্টিকেল

কোন প্রিমিয়ার লীগ ম্যাচউইক যখন বিতর্কের দ্বন্দ্বহীন?

যদিও এগুলি অত্যন্ত জানবর হতে পারে তবু এরগুলি লীগকে আরো রম্য ও আলোচনার কারণ করে। ইংলিশ টপ ফ্লাইটে প্রত্যেকটি ম্যাচ একটি চলচ্চিত্রের মত।

 

এখানে ইংলিশ ফুটবলের শীর্ষ বিভাগে এক সুন্দর সেটের ম্যাচ থেকে ম্যাচউইক পুরষ্কারগুলি দেওয়া হয়েছে।

সেরা খেলোয়াড় – কোনর ব্র্যাডলি

২০ বছর বয়সী কোনর ব্র্যাড্লি শুধুমাত্র রেডসের শেষ খেলায় তাঁর প্রিমিয়ার লীগ ডেবিউ করেছিলেন, তবে চেলসির বিপরীতে তিনি দেখিয়ে দিলেন যে তাঁদের রেন্ট আলেক্সান্ডার-আরনল্ড অনুপস্থিত থাকলেও তাঁদের কিছু খেতাব হয় না।

 

ব্র্যাডলি একটি দশ বছর প্রবীণ লীগ ভেটারান মত মনে হয় আনফিল্ডের বিপরীতে মাউরিসিও পোচেটিনোর দলের বিপক্ষে খেললেন। তিনি ব্লুজ বিপক্ষে জয় লিলেন এবং একটি গোল এবং দুটি সহযোগিতা দিয়েছিলেন।

 

মনে রাখতে হবে যদি অ্যালেক্সান্ডার-আরনল্ড তাঁর সমস্ত খেলার এলাকায় উন্নতি করতে না পারেন বা আরও উত্সাহজনক দক্ষতা সম্পর্কে প্রমাণ না করেন তবে তিনি আর্কিভে ছোট বয়সে অন্য একজনর পক্ষপাতিত্ব জন্যে বাদ পড়তে পারেন।

সেরা ইলেভেন

এই সময়ে সেরা একাদশ বিভিন্ন ভালো খেলোয়াড় দলে সমান নয়। একাধিক খেলোয়াড় তাদের টিমের জন্য আবিষ্কার করলেন।

 

এই প্রথম সপ্তাহে বৃষ্টির মত গোল পড়ল এবং একই সপ্তাহেই কোনো ম্যাচে হল যেখানে কিছুই ঘটেনি অনুযায়ী – ফুলাম বনাম ইভারটন – সেখানেও কয়েকটি ম্যাচে দলগুলি হাইলাইট ধরিয়েছিলো।

 

এই সপ্তাহের সেরা খেলোয়াড় হচ্ছে তরুণ, কোনর ব্র্যাডলি। তাঁর পাশে থাকছেন ক্রিস্টাল প্যালেসের যোগজ মাইকেল ওলিস এবং এবারচী ঈজের জাদুকর জোড়।

 

দুটি গোলের পার্থক্যও প্রকাংশ নেওয়া ডিফেন্ডার ফ্যাবিয়ান শার একেবারেই অন্তর্ীণ। এছাড়াও চারমাসের বেশি মেয়াদায় আইনশীলী আবণীয়ি তাইও আওনিয়ি এখানে আমাদের একাদশে অন্তর্ভুক্ত হয়ন।

 

গোলেকিপার – এলিসন – লিভারপুল

ডিফেন্ডার – কোনর ব্র্যাডলি – লিভারপুল

পড়ুন:  প্রিমিয়ার লিগের শিরোপা দৌড়: দ্বিতীয় স্থানের সমাপ্তি কি আর্সেনালের জন্য একটি বিপর্যয় হতে পারে?

ডিফেন্ডার – ফ্যাবিয়ান শার – নিউক্যাসল ইউনাইটেড

ডিফেন্ডার – ওলেকসান্দার জিঞ্চেঙ্কো – আর্সেনাল

ডিফেন্ডার – ডেসটিনি উদোগি – টোটেনহটস্পার

রাইট মিডফিল্ডার – বুকায়ো সাকা – আর্সেনাল

সেন্ট্রাল মিডফিল্ডার – মাইকেল ওলিস – ক্রিস্টাল প্যালেস

সেন্ট্রাল মিডফিল্ডার – এবারেকিচি ঈজে – ক্রিস্টাল প্যালেস

লেফট মিডফিল্ডার – লুইস ডিয়াজ – লিভারপুল

স্ট্রাইকার – ইলিয়ায়া আদেবাইয়ো – লুটন টাউন

স্ট্রাইকার – তাইও আওনিয়ি – নটিংহাম ফরেস্ট।

 

সেরা গোল

নারায়ণ বৃটিশ উপ-২১ খেলোয়াড় মাইকেল ওলিস বেশি গোল করেন না, তবে তিনি যখনই গোল করেন তখন আপনার জন্য যে পিটার হবে তা নিশ্চিত করতে পারেন।

 

ফরাসি উপ-২১ খেলোয়াড় প্রথমবারের মতো সময় পর্যন্ত দাঁড়ানো বক্স হয় জিয়ান ফিলিপ মাটিটা থেকে বাধায়িত ক্রস পরে অপসারণকেন্দ্রে পড়ার পর। একটি গোল আগেও শেফিল্ড ইউনাই

 

Share.
Leave A Reply